বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ সিরিজের আগে বাংলাদেশের টপ অর্ডারই ছিল আলোচনায়। ৪৩ রানে উদ্বোধনী জুটি ভাঙলেও মাহমুদুল ও নাজমুলের জুটি আশা জুগিয়েছে নতুন করে। চা-বিরতির পর অর্ধশতকটা আগে পেয়েছিলেন নাজমুলই। শুরুতে মাহমুদুল ও সাদমানের জুটিকে কৃতিত্ব দিচ্ছেন এই বাঁহাতি, ‘আমার মনে হয় জয় (মাহমুদুল) আর সাদমান শুরুতে খুব ভালো একটা জুটি গড়েছে। এ কারণে নামার পর আমার ব্যাটিং করাটা খুব সহজ হয়েছে।’

default-image

দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশ এখন পিছিয়ে মাত্র ১৫৩ রানে। আজ নিজেদের ব্যাটিংয়ের পরিকল্পনাটাও জানিয়েছেন নাজমুল, ‘আমি আর জয় (মাহমুদুল) লম্বা চিন্তা করিনি। আমরা বল ধরে ধরে চিন্তা করেছি। একটা ওভার, একটা ঘণ্টা কীভাবে পার করব। যে রকম বল দেখব, তেমনই খেলব—কোনো জোরাজুরির পরিকল্পনা ছিল না।’

দিন শেষে মাহমুদুল অপরাজিত থাকলেও ফিরতে হয়েছে নাজমুলকে, তাঁর আক্ষেপ সেটা নিয়েই, ‘জয় খুব ভালো ব্যাটিং করেছে। আমি যদি শেষ করে আসতে পারতাম, তাহলে আমাদের দিনটা আরও ভালো হতো।’

মাহমুদুলের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজও, ‘জয় অনেক ভালো ব্যাটিং করেছে, ইতিবাচক ছিল। ও যে নতুন, এটা ওর ব্যাটিং দেখে মনেই হচ্ছিল না। ও খুব ভালো মানিয়ে নিয়েছে। আমরা জানি, জয় খুব ভালো খেলোয়াড়। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দলের খেলোয়াড়। ওখানে ভালো খেলেছে, ঘরোয়াতে ভালো খেলে এসেছে জাতীয় দলে। ওর মাত্রই শুরু, বাংলাদেশকে অনেক কিছু দেওয়ার আছে। দলের জন্য ভালো হয়েছে, ওর নিজের ক্যারিয়ারের জন্য ভালো হয়েছে।’

default-image

নাজমুল-মাহমুদুলের ব্যাটিং ভালো লেগেছে দিনে নিউজিল্যান্ডের একমাত্র সফল বোলার ওয়াগনারের, ‘ওদের তরুণেরা দুর্দান্ত খেলেছে। তারা ধৈর্য নিয়ে ব্যাটিং করেছে। তারা সত্যি বলতে খুব বেশি সুযোগ দেয়নি। তারা ঝুলে থেকেছে, ম্যাচ আরও গভীরে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত ছিল। তারা বল ছেড়েছেও ভালোভাবে। ফলে আমরা উইকেট নেওয়ার জন্য আরও কাজ করতে হয়েছে। এটা তাদের স্কোর করার সুযোগ দিয়েছে। তারা দারুণ খেলেছে, পুরো কৃতিত্ব তাদের। যখন রান করার সুযোগ পেয়েছে, করেছে। বল ছেড়েছে ভালো, রক্ষণও ভালো।’

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন