তবে বড় ধাক্কাটা আসে ইনিংসের ১১তম ওভারে। ৩০ বলে ২৩ রান করা লিটন দাস তখন ভালোই ব্যাটিং করছিলেন। সেই লিটনই আরেক বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের প্রথম শিকারে পরিণত হন। ৩৪ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর আবাহনীর ভাগ্যে পরাজয় লেখা হয়ে যায়। আবাহনীর অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন কোনো উপায় না দেখে প্রতি–আক্রমণের পথ বেছে নেন। ৫৭ বল খেলে ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৬৫ রান করে দলের রান ১০০ ছাড়িয়ে আউট হন মোসাদ্দেক। আবাহনীর ব্যাটিং ভরাডুবির দিনে রকিবুল ও নাসির হোসেন ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন। মেহেদী ও তাইজুলের শিকার ২টি করে উইকেট।

তবে ম্যাচসেরা হয়েছেন প্রথম ইনিংসে ৭৭ রান করা এনামুল হক। শতকের সুযোগ ছিল প্রাইম ব্যাংকের এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের। আজ এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের ইনিংসের শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। শাহাদাত হোসেনের সঙ্গে ৯৭ রানের জুটি গড়েন তিনি। ৩৮ রান করে শাহাদাত আউট হলেও এনামুল এগোচ্ছিলেন এবারের লিগে তাঁর তৃতীয় শতকের দিকে।

default-image

কিন্তু ৮৫ বল খেলে ৭৭ রান করা আবাহনীর শ্রীলঙ্কার অলরাউন্ডার ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে লিটন দাসের কাছে ক্যাচ দেন এনামুল। ৭টি চার ও ৩টি ছক্কা ছিল এনামুলের ইনিংসে। এনামুলের গড়ে দেওয়া মঞ্চে দাঁড়িয়ে প্রাইম ব্যাংক এবারের লিগে মিরপুরের মাঠে সর্বোচ্চ ২৭৩ রান করতে সক্ষম হয়। মোহাম্মদ মিঠুন ৪৪ ও ইয়াসির আলী ৪৩ রান করেন। এ ছাড়া মেহেদী হাসানের ব্যাট থেকে আসে ২৭ বলে ৩৪ রানের ইনিংস।

প্রথম ইনিংসে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাও ঘটেছে। ইনিংসের ১১.৩ ওভারের কথা। প্রাইম ব্যাংকের এনামুল নাকি ক্রিজের মধ্য দিয়ে দৌড়ে রান নিচ্ছিলেন। বিষয়টি নিয়ে আম্পায়ার শরফুদ্দৌলা ইবনে শহীদ সৈকতের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয় আবাহনী অধিনায়ক মোসাদ্দেকের। একপর্যায়ে আম্পায়ার শরফুদ্দৌলা মোসাদ্দেককে মুখে আঙুল দিয়ে চুপ করার ইশারাও করেন। আবাহনীর আরেক ক্রিকেটার নাজমুল হোসেন এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

default-image

ওদিকে জয়যাত্রা অব্যাহত রেখেছে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল শেখ জামাল। বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সকে ৭২ রানে হারিয়েছে তারা। টসে হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৭১ রানের বড় স্কোর দাঁড় করায় শেখ জামাল। উদ্বোধনে রবিউল ইসলামের ৫৮ রানের পর শেখ জামালকে লড়াই করার মতো রানে নিয়ে যান নুরুল হাসান ও পারভেজ রসুল। নুরুল ৭২ বল খেলে করেছেন ৭৩ রান। রসুল তাঁর ৭৩ রান করতে খেলেছেন ৬৪ বল। রান তাড়ায় নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে আকবর আলীর দল। ইবাদত হোসেন ও রসুলের বোলিংয়ে খেই হারায় দলটি। দুজনই ৩টি করে উইকেট নিলে ১৯৯ রানে অলআউট হয় গাজী। গাজীর ভারতীয় ক্রিকেটার ধ্রুভ সরেয় সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন।

পাশের মাঠে বড় জয় পেয়েছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। রূপগঞ্জ টাইগার্স ক্রিকেট ক্লাবকে তারা হারিয়েছে ৫৫ রানে। টসে জিতে আগে ব্যাটিং করে ৩২৫ রান করে মাশরাফির লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। আজ রূপগঞ্জের হয়ে শতকের দেখা পেয়েছেন সাব্বির রহমান। এবারের ঢাকা লিগে দ্বিতীয়বারের মতো টপ অর্ডারে ব্যাটিং করার সুযোগ পেয়ে খেলেছেন ১১১ বলে ১২৫ রানের ইনিংস। ৮টি চার ও ৮টি ছক্কা ছিল সাব্বিরের ইনিংসে।

default-image

বাংলাদেশের জার্সিতে সব মিলিয়ে ১২১ ম্যাচে একটি শতক তাঁর, ২০১৯ সালে ডানেডিনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। সে বছরের সেপ্টেম্বরের পর জাতীয় দলে সুযোগ না পাওয়া সাব্বির ঘরোয়া ক্রিকেটেও আর শতক পাননি। আজকের শতকটি নিউজিল্যান্ডে সেই শতকের ৩৮ মাস পর প্রথম, সব মিলিয়ে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে তৃতীয়। তবে রূপগঞ্জকে ৫ উইকেটে ৩২৫ রানে পৌঁছাতে ভারতীয় ক্রিকেটার চেরাগ জানির অবদানও কম নয়। মাত্র ৬৬ বল খেলে তিনি ৯৫ রান করেন। ৪টি চার ও ৭টি ছক্কা ছিল চেরাগের ইনিংসে।

রূপগঞ্জের ৩২৫ রানের জবাবে ৯ উইকেটে ২৭০ রানে অলআউট হয় টাইগার্সরা। ইনিংসের শুরুতেই ৫৯ রানে ৪ উইকেট খুইয়ে ধুঁকতে থাকে দলটি। শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান সাদ নাসিম বিপর্যয় সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। তবে নাসিমের ১০৭ বলে ১১৬ রানের ইনিংসটি শুধুই হারের ব্যবধানই কমিয়েছে। বাকি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৯ উইকেটে ২৭০ রান করতে সক্ষম হয় টাইগার্সরা। রূপগঞ্জের হয়ে ৫ উইকেট নিয়েছেন নাবিল সামাদ।

ওদিকে ফতুল্লায় রেলিগেশন লিগের ম্যাচে খেলাঘরের বিপক্ষে ৮৫ রানে হেরেছে সিটি ক্লাব। অমিত হাসানের ১১৩ বলে ১০১ রানের ঝলমলে ইনিংসে ভর করে ৮ উইকেটে ২৮৯ রান করে খেলাঘর। রান তাড়ায় ৪৭.৪ ওভারে ৯ উইকেটে ২০৪ রান করে সিটি ক্লাব। সিটির অধিনায়ক জাওয়াদ রোয়েনের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৫৪ রানের ইনিংস। শতক করে ম্যাচসেরা হয়েছেন খেলাঘরের অমিত।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন