বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ম্যাচে ৩৫ মিনিটের মধ্যে হ্যাটট্রিক তুলে নেন বায়ার্নের ক্যামেরুনের ফরোয়ার্ড এরিক ম্যাক্সিম চুপো-মোতিং। শুধু হ্যাটট্রিক করেই সন্তুষ্ট থাকেননি তিনি। ৮২ মিনিটে তুলে নেন নিজের চতুর্থ গোল। শুধু তাই নয়, সতীর্থদের দিয়েও করিয়েছেন আরও তিন গোল। মূল স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডফস্কি ও গোলকিপার ম্যানুয়েল নয়্যারকে ছাড়াই মাঠে নামা বায়ার্নের এই গোল উৎসবে শামিল হন জামাল মুসায়লা, মালিক তিলমান, লেরয় সানে, মিশেল কুইসানকে, বোউনা সার ও কোরেন্তিন তোলিসো।

default-image

ম্যাচে বায়ার্নের আধিপত্য কতটা ছিল তা বুঝিয়ে দেবে পরিসংখ্যান। ব্রেমেরের গোলপোস্ট তাক করে ৩৭টি শট নিয়েছে বায়ার্ন। এর মধ্যে গোলপোস্টে ছিল ২১টি শট। ব্রেমেরের সৌভাগ্য যে আরও গোল হয়নি। চুপো-মোতিং একাই নিয়েছেন ৭টি শট। গত ১৬ বছরের মধ্যে জার্মান কাপে বায়ার্নের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এক ম্যাচে একাই চার গোলের দেখা পেলেন তিনি। ২০০৫ সালে ফ্রেইবুর্গের বিপক্ষে এই জার্মান কাপেই একাই চার গোল করেছিলেন পেরু কিংবদন্তি ক্লদিও পিজারো।

default-image

এই ম্যাচটা খেলার কথা ছিল গত ৬ আগস্ট। কিন্তু ব্রেমের স্কোয়াডে করোনা হানা দেওয়ায় ম্যাচটি পিছিয়ে নেওয়া হয়। লেভানডফস্কি ছাড়াও লেরয় গোর্তেকাকেও মাঠের বাইরে রাখেন নাগালসমান। বেঞ্চে বসিয়ে রাখেন আলফানসো ডেভিস ও সের্হি নাব্রিকে। তিলমান ও যুক্তরাস্ট্রের তরুণ টেলর বুথের বায়ার্নের মূল দলে অভিষেক হলো এ ম্যাচ দিয়ে।

এদিকে ইংলিশ লিগ কাপের ম্যাচে ওয়েস্টব্রমকে ৬-০ গোলে হারিয়েছে আর্সেনাল। হ্যাটট্রিক করেছেন পিয়েরে-এমেরিক অবামেয়াং। এ মৌসুমে এটিই আর্সেনালের প্রথম জয়।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন