বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

যে কারণে কখনো রাইটব্যাক সের্হিনিও দেস্তকে টেনে ওপরে উঠিয়ে উইঙ্গার হিসেবে খেলাচ্ছেন, তো কখনো মিডফিল্ডার ফিলিপ কুতিনিও আর গাভিকে পালন করতে বলছেন ফরোয়ার্ডের ভূমিকা। নতুন মুখ এজালজুলি আবদেলসামাদ, ইউসুফ দেমির, ইলাইশ আখোমাচকে প্রায় সময়েই ফরোয়ার্ড হিসেবে মাঠে নামিয়ে দিচ্ছেন জাভি। এসব তো সাময়িক সমাধান, আরেকটু দীর্ঘমেয়াদি সমাধানের খোঁজে জানুয়ারির শীতকালীন দলবদলের বাজারে নতুন একজন ফরোয়ার্ড চাইছে বার্সেলোনা।


লাইপজিগের দানি অলমো থেকে শুরু করে ম্যানচেস্টার সিটির ফেরান তোরেস, বাসেলের আর্থুর কাবরাল—অনেকের ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়েছে কাতালানরা। খুঁজতে খুঁজতে পরিচিত এক নামেও চোখ পড়েছে তাদের। তিনি আর কেউ নন, এককালে বার্সেলোনায় খেলে যাওয়া চিলিয়ান ফরোয়ার্ড আলেক্সিস সানচেজ। তবে একেবারে দীর্ঘ মেয়াদে নয়, আপাতত মৌসুমের শেষ পর্যন্ত ধারে ৩২ বছর বয়সী সানচেজকে আনতে চাইছে বার্সা। এমন খবরই দিয়েছে কাতালানভিত্তিক পত্রিকা স্পোর্ত।

default-image

২০১৪ সালে বার্সেলোনা ছাড়ার পর আর্সেনাল আর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ঘুরে সানচেজ এখন ইন্টার মিলানে। এমনিতেই জানুয়ারিতে খরচ করার মতো তেমন টাকাপয়সা নেই বার্সার, তাই কম খরচে কাকে আনা যায়, সেদিকেই লক্ষ্য রাখতে হচ্ছে তাদের। সানচেজ এমনিতেই ইন্টার মিলানের মূল একাদশের অংশ নন। এদিন জেকো, হাকান চালহানোলু, লাওতারো মার্তিনেজ আর ক্লাবে এ মৌসুমেই যোগ দেওয়া হোয়াকিন কোরেয়ার জন্য সেভাবে মূল একাদশে দেখা যায় না তাঁকে। তাই বার্সা মনে করছে, ধারে নিজেদের সাবেক এই খেলোয়াড়কে দলে টানা সম্ভব।


সে ক্ষেত্রে বার্সাকে একটু কৌশলীও হতে হচ্ছে। সানচেজকে দলে টানার জন্য ইন্টারের কাছে লুক ডি ইয়ংকে ধারে দিতে চায় বার্সা। কিন্তু ডি ইয়ংকেই তো বার্সা গত আগস্টে ধারে এনেছে সেভিয়া থেকে! সে কারণে সানচেজকে আনতে হলে ইন্টারের পাশাপাশি সেভিয়ার সঙ্গেও সমঝোতার দরকার হবে বার্সার। ডি ইয়ংয়ের ধারের চুক্তি নিজেরা বাতিল করলেও সেভিয়া থেকে তাঁর আবার ইন্টারে ধারে যেতে ঝামেলা না হয়, সেটি নিশ্চিত করতে হবে বার্সাকে। আর ইন্টারের সঙ্গে নিজেদের করতে হবে সানচেজকে ধারে আনার চুক্তি।

default-image

তবে স্পোর্তের এ খবরকে উড়িয়ে দিয়েছেন আরেক সংবাদমাধ্যম মার্কার সাংবাদিক লুইস রোহো। তাঁর মতে, ফেরান তোরেসকে আনার জন্যই আসছে জানুয়ারিতে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাবেন জাভি। ফেরানকে না পাওয়া গেলে চেলসির টিমো ভেরনার কিংবা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এদিনসন কাভানির দিকে চাইতে পারেন বার্সা কোচ। আর বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের আর্লিং হরলান্ডের প্রতি অনেক দিনের আগ্রহ তো আছেই। রোহোর সঙ্গে সুর মিলিয়ে ইতালিভিত্তিক ক্রীড়া সাংবাদিক নিকো শিরাও জানিয়েছেন, সানচেজকে নিয়ে ইন্টারের সঙ্গে বার্সেলোনার কোনো কথাবার্তা হয়নি।


২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বার্সায় মেসিদের সঙ্গে খেলে গেছেন সানচেজ। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ১৪১ ম্যাচ খেলে ৪৬ গোল করেছেন, করিয়েছেন আরও ২৭ গোল।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন