সুপার ওভারের পর জয় উদযাপন দিল্লি ক্যাপিটালস অধিনায়ক ঋষভ পন্তের
সুপার ওভারের পর জয় উদযাপন দিল্লি ক্যাপিটালস অধিনায়ক ঋষভ পন্তেরছবি: আইপিএল

জয়ের সুবাস পেয়েও জেতা হলো না সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। চেন্নাইয়ে সুপার ওভারের উত্তেজনা শেষে জিতেছে দিল্লি ক্যাপিটালস।

দিল্লির ১৫৯ রান তাড়া করতে গিয়ে হায়দরাবাদ ম্যাচ নিয়ে যায় সুপার ওভারে। অক্ষর প্যাটেলের করা সুপার ওভারে দিল্লিকে মাত্র ৮ রানের লক্ষ্য দেয় ডেভিড ওয়ার্নারের দল। আর সেই ৮ রানের পুঁজি নিয়ে হায়দরাবাদকে জেতানোর দায়িত্ব বর্তায় রশিদ খানের ওপর। কিন্তু রশিদের ওভারে এক বাউন্ডারি ও দৌড়ে চার রান নিয়ে দিল্লিকে ম্যাচ জিতিয়ে দেন দুই বাঁহাতি শেখর ধাওয়ান ও ঋষভ পন্ত। এটিই ছিল এবারের আইপিএলের প্রথম সুপার ওভার।

বিজ্ঞাপন
default-image

তবে হায়দরাবাদকে সুপার ওভার পর্যন্ত টিকিয়ে রাখেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। টুর্নামেন্টের শুরু থেকে তাঁর অপেক্ষাতেই ছিল হায়দরাবাদ। চোটের কারণে এবারের আইপিএলের শুরু থেকে খেলতে পারেননি তিনি।

উলিয়ামসনকে ছাড়া ৪ ম্যাচ খেলে ৩টিতেই হারে হায়দরাবাদ। পয়েন্ট তালিকার তলানিতে থাকা দলটিকে টেনে তুলতে সবাই তাকিয়ে ছিল উইলিয়ামসনের দিকেই। আজ দিল্লির বিপক্ষে দলে ফিরে সেই উইলিয়ামসনই একা লড়লেন হায়দরাবাদের হয়ে। ৬৬ রানের ইনিংস খেলে হারতে থাকা ম্যাচটা সুপার ওভারে নেন তিনিই।

কিন্তু টপ অর্ডারে জনি বেয়ারস্টো ও শেষের দিকে তরুণ ক্রিকেটার জগদেশা সুচিথ ছাড়া কেউই উইলিয়ামসনকে সঙ্গ দিতে পারেননি। শুরুতে ডেভিড ওয়ার্নারের রান আউটের পর বেয়ারস্টো চার-ছক্কায় হায়দরাবাদকে দ্রুত রান এনে দেন। মাত্র ১৮ বলে ৩৮ রানের ইনিংসটি পুরো ম্যাচেই সবচেয়ে দ্রুতগতির ইনিংস। নিষ্প্রাণ উইকেটে তিনি রান তোলেন ২১১ স্ট্রাইক রেটে।

দিল্লির পেসার আভেস খান এসে বিপদে ফেলেন হায়দরাবাদকে। বেয়ারস্টোকে বানান ধাওয়ানের ক্যাচ। মাঝে ও ডেথ ওভারে এসেও উইকেট নিয়েছেন আভেস। তিন উইকেট নিয়ে দিল্লির সেরা বোলার ছিলেন তিনিই।

default-image
বিজ্ঞাপন

একের পর এক উইকেট পতনে হায়দরাবাদ মিডল অর্ডার ধস নামে। শেষে দায়িত্বটা এসে ঠেকে উইলিয়ামসন ও তরুণ সুচিথের ওপর। শেষ ওভারে জয়ের জন্য হায়দরাবাদের দরকার ছিল ১৬ রান। ওয়াইড, বাই, চার ও ছয়ে রাবাদার ওভার থেকে ১৫ রান নিয়ে ম্যাচ সুপার ওভারে নেন হায়দরাবাদের এই দুই ব্যাটসম্যান।

এর আগে দিল্লি প্রথমে ব্যাটিং করে চেন্নাইয়ের উইকেট বিবেচনায় লড়ার করার মতো রানই করে। কঠিন উইকেটে দিল্লির টপ অর্ডারের সবাই মাঝারি ইনিংসই খেলেন। ওপেনিংয়ে নেমে পৃথ্বি শ ৩৯ বলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় ফিফটি করেন। শেখর ধাওয়ান, ঋষভ পন্ত, স্টিভ স্মিথদের ছোট ছোট ইনিংসে ৪ উইকেটে ১৫৯ রান সংগ্রহ করেন।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন