বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বছর এপ্রিলে আইপিএলে বাঁ হাতের তর্জনীতে পাওয়া চোট থেকে এখনো পুরোপুরি সেরে ওঠেননি স্টোকস। সম্প্রতি আবার অস্ত্রোপচার লেগেছে তাঁর। এ অস্ত্রোপচারের পর আরেকবার অনিশ্চয়তায় পড়ে স্টোকসের অ্যাশেজে অংশগ্রহণ। শেষ পর্যন্ত এ দলের জন্য তাঁকে বিবেচনা করা হয়নি বলে জানিয়েছে ইসিবি।

default-image

অ্যাশেজের দলে নেই আরেক অলরাউন্ডার স্যাম কারেনও। আইপিএলে কোমরের ওপরের অংশে চোট পাওয়ার পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকেও ছিটকে গেছেন কারেন। ইসিবি বলছে, দ্বিতীয় দফা স্ক্যান করার পর ‘স্ট্রেস ফ্র্যাকচার’ ধরা পড়েছে তাঁর। আগে থেকেই এ সফর থেকে ছিটকে গেছেন দুই ফাস্ট বোলার জফরা আর্চার ও ওলি স্টোন। এ ছাড়া সম্প্রতি টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন মঈন আলী।

চোটের কারণে ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের পর সিরিজ থেকে ছিটকে যাওয়া স্টুয়ার্ট ব্রড অবশ্য আছেন ইংল্যান্ড দলে। পায়ের মাংসপেশির চোট থেকে তিনি বেশ ভালোভাবেই সেরে উঠেছেন বলে জানিয়েছে ইসিবি। এটি অস্ট্রেলিয়ায় ব্রডের চতুর্থ অ্যাশেজ হতে যাচ্ছে। ৩৯ বছর বয়সী জেমস অ্যান্ডারসনের জন্য এটি পঞ্চম অ্যাশেজ সফর।

অন্যদিকে এবারই প্রথম অ্যাশেজ খেলতে অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন বাটলার। এর আগে পারিবারিক কারণে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ টেস্ট খেলেননি এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। আইপিএলের পরের অংশ থেকেও নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত পরিবারের সদস্যদের ক্ষেত্রে কোয়ারেন্টিন ও জৈব সুরক্ষাবলয়ের নিয়ম আগের মতোই থাকলে অস্ট্রেলিয়ায় যাবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন এই ব্যাটসম্যান।

default-image

এর আগেই ইসিবি ঘোষণা দিয়েছে, শর্ত সাপেক্ষে অ্যাশেজ খেলতে অস্ট্রেলিয়ায় যেতে রাজি হয়েছে তারা। আজ বিবৃতিতে তারা বলেছে, ‘আগেই বলা হয়েছে, নভেম্বরে এ সফরে যাওয়ার আগে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ শর্ত পূরণ করতে হবে। তবে ইতিবাচক আলোচনা হচ্ছে। আশা করা যায়, সময়মতো সবকিছুর সমাধান হয়ে যাবে।’

শেষ পর্যন্ত পূর্ণ শক্তির দল পেয়ে উচ্ছ্বসিত ইংল্যান্ডের প্রধান কোচ ও নির্বাচক ক্রিস সিলভারউড, ‘ইংল্যান্ডের যেকোনো টেস্ট ক্রিকেটারের জন্য অস্ট্রেলিয়া সফর পরম আরাধ্য। সবাই এ সফরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে বলে বেশ খুশি আমি। এ ঐতিহাসিক সিরিজে খেলতে আমরা সবাই মুখিয়ে আছি।’

default-image

সর্বশেষ ২০১০-১১ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অ্যাশেজ জিতেছে ইংল্যান্ড। পরের দুটি সিরিজে ইংল্যান্ড জিততে পারেনি একটি টেস্টও। সিলভারউড জানেন কাজটা সহজ হবে না এবারও, ‘অতীতেও নিজেদের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া বেশ শক্তিশালী দল ছিল। এবারও তাদের ওপর প্রত্যাশা আছে। তবে আমাদের দিক থেকে আমরা রোমাঞ্চিত। আমাদের বিশ্বাস, এবার বিশেষ কিছু করতে পারব।’

ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ দল
জো রুট (অধিনায়ক), জেমস অ্যান্ডারসন, জনি বেয়ারস্টো, ডম বেস, স্টুয়ার্ড ব্রড, ররি বার্নস, জস বাটলার, জ্যাক ক্রলি, হাসিব হামিদ, ড্যান লরেন্স, জ্যাক লিচ, ডেভিন মালান, ক্রেইগ ওভারটোন, ওলি পোপ, ওলি রবিনসন, ক্রিস ওকস, মার্ক উড।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন