মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের মূল ফটক দিয়ে ঢুকতেই সামনে একটি মঞ্চ। ব্যানার টানানো, ‘বাংলাদেশ দলকে শুভকামনা।’ মঞ্চে রাখা সাদা বোর্ড, যেখানে স্বাক্ষর করে দলকে শুভকামনা জানালেন বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান ও বোর্ড পরিচালকেরা। সুযোগটা থাকছে সবার জন্যই, সব বিভাগীয় ও জেলা শহরে চলছে শুভকামনা স্বাক্ষর সংগ্রহের অভিযান। তবে বিশ্বকাপ অভিযানে বাংলাদেশ দলকে শুভকামনা জানানোর মূল আয়োজন শুরু হচ্ছে আজ। ‘এগিয়ে চলো বাংলাদেশ’ স্লোগানে হতে যাচ্ছে তিনটি কনসার্ট। প্রথমটি আজ খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে।
কনসার্ট উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে কাল বোর্ড পরিচালকদের অনেককে নিয়ে থাকলেন স্বয়ং বোর্ডপ্রধান! কনসার্টের উদ্দেশ্য প্রথমে বলা হলো ‘বিশ্বকাপের হাইপ তোলা।’ কিন্তু যে বিশ্বকাপ হবে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে, সেটার ‘হাইপ’ কেন বাংলাদেশে তুলতে হবে! আর বাংলাদেশের মানুষের ক্রিকেট উন্মাদনা এমনিতেই যথেষ্ট। বিশ্বকাপের সময় উত্তেজনার পারদ থাকে আরও উঁচুতে। কনসার্ট দিয়ে বাড়তি উন্মাদনা সৃষ্টির আদৌ কি প্রয়োজন আছে? নাজমুল হাসানের ব্যাখ্যা, ‘আসলে শুধু হাইপ তোলা নয়। দেশে এখন যে অবস্থা, ক্রিকেটাররা ওখানে অনেক টেনশনে থাকে। ওদের আমরা এই বার্তা দিতে চাই যে শঙ্কার কিছু নেই। দেশের মানুষ তাদের সঙ্গে আছে। ওদের শুভকামনা জানাতেই এই কনসার্ট।’
আজ খুলনায় গান গাইবে মাইলস, নেমেসিস, শুভ অ্যান্ড ফ্রেন্ডস। চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে আগামীকাল হবে এলআরবি, ওয়ারফেজ ও তীরন্দাজের কনসার্ট। শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে থাকবে মাইলস, এলআরবি, বাপ্পা অ্যান্ড ফ্রেন্ডস, ওয়ারফেজ ও মমতাজ। টিকিট পাওয়া যাবে ইউসিবি ব্যাংকে—খুলনায় খানজাহান আলী শাখায়, চট্টগ্রামে দামপাড়া শাখায়, ঢাকায় ধানমন্ডি ও বসুন্ধরা শাখায়। কনসার্টের আগে পাওয়া যাবে ভেন্যুতেও। টিকিটের দাম খুলনা ও চট্টগ্রামে ১০০, ৩০০ ও ৫০০ টাকা, ঢাকায় ১০০, ৫০০ ও ১০০০ টাকা।

বিজ্ঞাপন
খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন