বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আসিফ আলী এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের হয়ে ম্যাচজয়ী দুটি অসাধারণ ইনিংস খেলেছেন। প্রথমে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১২ বলে অপরাজিত ২৭ রানের ইনিংসের পর আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৯তম ওভারে ৪ ছক্কায় পাকিস্তানকে ম্যাচ জিতিয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরেন তিনি।

অক্টোবর মাসে তিনি তিন ম্যাচে ৫২ রান করেছেন, ওই তিন ম্যাচেই জেতে পাকিস্তান। তাঁর স্ট্রাইক রেটও ছিল চোখজুড়ানো, ২৭৩.৬৮।

আসিফের এমন পারফরম্যান্সের পর আইসিসির ভোটিং একাডেমির সদস্য ইরফান পাঠান বলেন, ‘দলকে জেতানোয় সাহায্য করতে পারাটা সব সময়ই বিশেষ কিছু। কিন্তু খাদের কিনারে থাকা দলকে জেতানোয় আসিফ আলীর এই পারফরম্যান্স ছিল সত্যি বিশেষ কিছু। সে শুধু একবার নয়, দুবার এমনটা করেছে। যদিও অন্য দুই প্রতিদ্বন্দ্বী খেলোয়াড়ের চেয়ে তার রান কম। কিন্তু যে পরিস্থিতিতে থেকে চাপের মধ্যে ম্যাচ বের করে এনেছে, তাতেই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে সে।’

লরা ডেলানির অধিনায়কত্বে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছে আয়ারল্যান্ড। এই অলরাউন্ডার ব্যাট–বলে নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। তিনি ৬৩ গড়ে রান করেছেন ১৮৯। ২৭ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট।

তাঁকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত আইসিসির ভোটিং প্যানেলের সদস্য লিসা স্থালেকার, ‘এক দশকের বেশি সময় ধরে লরা ক্রিকেট খেলছে। তার দেশের হয়ে অধিনায়কত্ব করছে, যেটা খুব কঠিন কাজ। কিন্তু সে প্রত্যাশা মিটিয়ে চলেছে তার দেশের। আমি যখন ওর সঙ্গে গর্ডন উইমেন্স ক্লাবের হয়ে সিডনিতে খেলেছি, তখন থেকেই তাকে অনুসরণ করি। তার উন্নিত চোখে পড়ার মতো। সাম্প্রতিক সময়ের এই সিরিজ তার জন্য ছিল অসাধারণ একটা সিরিজ। এই সিরিজে ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ওয়ানডে রান করেছে সে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন