বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত সপ্তাহে এক অনাকাঙ্ক্ষিত বিতর্কেই অস্ট্রেলিয়া টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ান টিম পেইন। ২০১৭ সালে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এক নারী কর্মীকে কিছু যৌন উত্তেজক খুদে বার্তা পাঠিয়েছিলেন তিনি। এত দিন পর সেটি অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। বিতর্ক ও সমালোচনারও ঝড় ওঠে। ফলে নৈতিক কারণে অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ান তিনি।

এ ঘটনার পরও তাঁকে অস্ট্রেলীয় দলে রাখার ব্যাপারে তাঁর সতীর্থেরা নিজেদের সমর্থনের কথা জানিয়েছিলেন। বুধবার অস্ট্রেলীয় টেস্ট দলের ওপেনার মার্কাস হ্যারিস বলেছিলেন, পেইনের প্রতি অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটারদের পূর্ণ সমর্থন আছে। অস্ট্রেলীয় দলের হয়ে অ্যাশেজে খেলার সুযোগটা তাঁর প্রাপ্যই। ২০১৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউন টেস্টে বল বিকৃতির ঘটনা ‘স্যান্ডপেপার কেলেঙ্কারি’র পর টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব হারিয়েছিলেন স্টিভ স্মিথ। সে ঘটনার অন্যতম চরিত্র ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার, ক্যামেরন ব্যানক্রফট। ওই সময় দলে সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতার ভিত্তিতে পেইনকে অস্ট্রেলীয় টেস্ট দলের অধিনায়ক করা হয়েছিল।

পেইনের সরে দাঁড়ানো নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী নিক হুকলি সমব্যথী, ‘আমরা খুব ভালোই বুঝতে পারছি, টিম পেইন ও তাঁর পরিবার এ মুহূর্তে কঠিন একটা সময় পার করছে। আমরা তাঁর সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাই। তাঁকে সব ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা করার জন্যও প্রস্তুত।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন