default-image

সময়টা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না মহেন্দ্র সিং ধোনির দলের। প্রায় চার মাস জয়হীন একটা দলের আত্মবিশ্বাস কোন পর্যায়ে গিয়ে ঠেকে, নিশ্চয় অনুমেয়। ফলে আফগানদের বিপক্ষে আজকের ম্যাচটা ছিল ভারতের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণই। হোক না প্রস্তুতি ম্যাচ, তবুও অ্যাডিলেড ওভালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৫৩ রানের জয়টা বিশ্বকাপের আগে ভারতকে দেবে নিজেদের ফিরে পাওয়ার প্রেরণা!
৩৬৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুর দিকে ভালোই চ্যালেঞ্জ ছুড়েছিল আফগানরা। বিরাট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৩০ রানেই হারায় ওপেনার জাভেদ আহমাদির উইকেটটি। এরপর উসমান গনী ও নওরোজ মঙ্গলের দ্বিতীয় উইকেটে আসে ৬৩ রান। রবীন্দ্র জাদেজার বলে উসমান ফেরেন ৪৪ রান করে। তৃতীয় উইকেটে আসগার স্টানিকজাই ও নওরোজ যোগ করেন ৬০ রান। ৩৪.৫ ওভারে ৩ উইকেটে ১৫৩ রান তোলার পরও হঠাৎই খেই হািরয়ে ফেলে আফগানরা। মাত্র ১৬ রানের ব্যবধানে টপাটপ পড়ে যায় ৪ উইকেট! সামিউল্লাহ শেনোয়ারি-আফসার জাজাইয়ের সপ্তম উইকেটে ৩০ রানের কল্যাণে আফগানরা ২০০ পার করে। তবে একদিক দিয়ে তারা বেশ ‘সফল’—আফগানিস্তানকে অলআউট করতে পারেননি ভারতের বোলাররা! নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২১১ রান তুলে থামে আফগানদের ইনিংস। সর্বোচ্চ ৬০ রান এসেছে নওরেজের ব্যাট থেকে। ভারতের পক্ষে মোহিত শর্মা ও জাদেজা পেয়েছেন সর্বোচ্চ দুটি করে উইকেট।
এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মার দুর্দান্ত এক ইনিংসে ৩৬৫ রানের পাহাড় গড়ে ভারত। সুরেশ রায়নাকে সঙ্গে করে তৃতীয় উইকেটে যথেষ্ট ভোগান রোহিত। দুজনের তৃতীয় উইকেটে আসে ১৫৮ রান। ৭৫ রান করে রানআউটে কাটা পড়েন রায়না। এরপর অজিঙ্কা রাহানের সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে আরেকটি দারুণ জুটি গড়েন রোহিত। এ জুটিতে আসে ৬৮ বলে ৯৫ রান। নবীর বলে ফেরার আগে রোহিতের ব্যাট থেকে আসে ১৫০ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। ১২২ বল খেলা ইনিংসটি সাজিয়েছিলেন ১২ চার ও সাত ছয়ে। এ ছাড়া ৮৮ রানে অপরাজিত থাকেন রাহানে। আফগানিস্তানের বিপক্ষেও নিষ্প্রভ িছলেন ভারতীয় ব্যাটিং সেনসেশন বিরাট কোহলি। মাত্র ৫ রানেই সাজঘরমুখী হয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন