সিডনি টেস্টের চতুর্থ দিন গ্যালারি থেকে বের করে দেওয়া হয় কিছু দর্শককে। তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্যের অভিযোগ করেছিলেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ সিরাজ।
সিডনি টেস্টের চতুর্থ দিন গ্যালারি থেকে বের করে দেওয়া হয় কিছু দর্শককে। তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্যের অভিযোগ করেছিলেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ সিরাজ।ছবি: এএফপি

সিডনি টেস্টে মাঠের বাইরের খেলাও জমেছে ভালোভাবেই। অস্ট্রেলিয়ান দর্শকদের বর্ণবাদী আচরণ নিয়ে তোলপাড় চলছে। বিরাট কোহলি, শচীন টেন্ডুলকার, গ্লেন ম্যাকগ্রা ও সুনীল গাভাস্কার নিন্দা জানিয়েছেন এমন আচরণের। দর্শকদের এই আচরণের জন্য ভারতীয় দলের কাছে ক্ষমাও চেয়েছে অস্ট্রেলিয়া দল। এদিকে ভারতের স্পিন অলরাউন্ডার রবিচন্দ্র অশ্বিন বড় এক অভিযোগ তুলেছেন। অস্ট্রেলিয়া সফরে এক দশক ধরে দর্শকদের বর্ণবাদী আচরণ অশ্বিনের কাছে নাকি নতুন কিছু না। এক দশক ধরেই এমন আচরণ দেখছেন অশ্বিন। বিশেষ করে সিডনির দর্শকদের আচরণ ‘নোংরা’—মন্তব্য অশ্বিনের।

ভারতের পেসার মোহাম্মদ সিরাজ ও জশপ্রীত বুমরা সিডনিতে দর্শকদের বর্ণবাদী আচরণের শিকার হওয়ায় এক দিনে দুবার ভারতীয় দলের কাছে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া—জানিয়েছে নাইন নিউজ। কিছু দর্শককে মাঠ থেকে বেরও করে দেওয়া হয়। ভারতের ইংরেজি দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক খবরে বলা হয়, সিরাজ ও বুমরাকে ‘বানর’ বলে গালি দেওয়া হয়। আরও কিছু নোংরা মন্তব্যও করা হয়। খুব সম্ভবত বর্ণবিদ্বেষী দর্শকেরা মদ্যপ অবস্থায় মন্তব্যগুলো করছিল।

default-image
বিজ্ঞাপন

কাল চতুর্থ দিনের খেলা শেষে সংবাদমাধ্যমকে অশ্বিন বলেছেন, ‘অস্ট্রেলিয়া ও সিডনিতে এ নিয়ে চতুর্থবার এলাম। বেশ কিছু অভিজ্ঞতার (বর্ণবাদী) শিকার হয়েছি, অতীতেও এমন হয়েছে। দর্শক এবং ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিক্রিয়া–পাল্টা প্রতিক্রিয়া থেকে অতীতেও এমন ঘটনা ঘটেছে। স্টেডিয়ামের নিচের অংশের দর্শকেরা যে ভাষায় কথা বলে তা যন্ত্রণাদায়ক। ভীষণ নোংরা ও কটু ভাষায় কথা বলে তারা। এক ধাপ এগিয়ে বর্ণবাদী মন্তব্যও করে।’

সিডনির দর্শকদের সঙ্গে অ্যাডিলেড ও মেলবোর্নের দর্শকদের তুলনাও করেছেন অশ্বিন, ‘ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি মেলবোর্ন ও অ্যাডিলেডের দর্শকেরা এত খারাপ না। সিডনিতে এটা যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমি নিজেও এর (বর্ণবাদ) শিকার হয়েছি। জানি না কিসের জন্য তারা নোংরা আচরণ করে। দেখে খুব বিস্মিত হয়েছি যে গ্যালারিতে ধারাবাহিক বর্ণবাদী আচরণ পাশে বসা কেউ থামাচ্ছে না। এটা অবশ্য নিয়ন্ত্রণ করতে হবে, হতাশা—শব্দটা এ ক্ষেত্রে খুব হালকা হয়ে যায়।’

নিজের প্রথম অস্ট্রেলিয়া সফরের স্মরণ করে অশ্বিন বলেন, ‘২০১১–১২ মৌসুমে প্রথমবার অস্ট্রেলিয়া সফরে এসে বর্ণবাদী আচরণ সমন্ধে আমার কোনো ধারণা ছিল না। প্রচুর দর্শকের সামনে মাঠে নিজেকে খুব ক্ষুদ্র মনে হতো। তবে এমন আচরণের শিকার হলে সবাই আপনাকে নিয়ে হাসবে। শুরুতে বুঝতে পারিনি কেন সবাই হাসছে। কিন্তু ধীরে ধীরে শিখেছি যে এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য না।’

সিডনি টেস্টে আজ পঞ্চম ও শেষ দিনে হনুমা বিহারিকে নিয়ে লড়ছেন অশ্বিন। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৫ উইকেটে ২৯৯ রান তুলেছে ভারত। উইকেটে রয়েছেন অশ্বিন (২৬) ও হনুমা বিহারি (৬)। জয়ের জন্য এখনো ১০৮ রানে পিছিয়ে ভারত। হাতে রয়েছে ন্যূনতম ২৩ ওভার।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন