ভারতের ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পূজারা
ভারতের ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পূজারাছবি: টুইটার

চেতেশ্বর পূজারা কোন ধাতে গড়া? উত্তর খুঁজতে গিয়ে অনেকে বলেন, পুরো শরীরই যেন কলিজা!

প্রতিপক্ষের ভীষণ সব বাউন্সার ব্যাটে না পেলে শরীরটাও পেতে দেন। তবু আউট হওয়া যাবে না! প্রতিপক্ষ বল করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়লেও পূজারা একটা শট ওপরে খেলবেন না।

বাতাসে ভাসানো শট খেলা যেন তাঁর ধাতেই নেই। আর ডাউন দ্য উইকেট? ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে গিয়ে স্পিনারকে ছক্কা মারতে পূজারাকে শেষ দেখেছেন কবে? রবিচন্দ্র অশ্বিন ঠিক এই চ্যালেঞ্জই জানালেন ভারতীয় ব্যাটিংয়ের স্তম্ভকে।

টেস্ট ক্রিকেটের জন্য আদর্শ ব্যাটসম্যান যেমন হওয়া উচিত—রাহুল দ্রাবিড়ের পর তা পূজারার মধ্যে খুঁজে পেয়েছে ভারত।

এই তো কিছুদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ভারতের ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জয়ে পূজারা ব্যাটের সঙ্গে শরীর বিছিয়ে লড়েছেন। প্যাট কামিন্স, জশ হ্যাজেলউড, মিচেল স্টার্কদের শরীর তাক করে মারা গোলা থুবড়ে পড়েছে পূজারার রক্ত-মাংসে গড়া বর্মে।

বিজ্ঞাপন

কচ্ছপ-কামড় দিয়ে পড়ে ছিলেন উইকেটে—যে ব্যাটিং বড় ভূমিকা রেখেছে ভারতের টেস্ট সিরিজ জয়ে। পূজারা নিজেও বলেছেন, ‘ম্যাচের পরিস্থিতি বিবেচনায় আর উইকেট হারালে বিপদ হতো। তাই বলের সামনে শরীরও পেতে দিয়েছি।’

ক্রিকেটের কুলীন সংস্করণে এমন ব্যাটসম্যান রত্ন। কিন্তু এমন ব্যাটসম্যানেরাও মাঝেমধ্যে ম্যাচের দাবি মেনে আগ্রাসী হয়ে যান, ডাউন দ্য উইকেট এসে স্পিনারদের মাথার ওপর দিয়ে ছক্কা মারেন। কিন্তু পূজারার কাছ থেকে এমন শট দেখা যায় না বললেই চলে। তিল পরিমাণ ঝুঁকি নিতেও যেন তাঁর আপত্তি।

অশ্বিন সম্ভবত তাঁর জাতীয় দল সতীর্থকে এই ‘আপত্তি’র জায়গা থেকে বের করে আনতেই ‘টোপ’ দিলেন।

সামনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে ভারত। কাল ৩৩ বছর পূর্ণ করা পূজারাকে এ সিরিজে একটি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন ভারতের অফ স্পিনার অশ্বিন।

ইংল্যান্ডের কোনো স্পিনারকে ডাউন দ্য উইকেট (ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে) গিয়ে মারতে হবে—পূজারা এই কাজ করতে পারলে অশ্বিন নাকি তাঁর গোঁফ অর্ধেক কেটে খেলতে নামবেন!

ভারতের ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠোরের সঙ্গে নিজের অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে এ নিয়ে বেশ মজাই করেছেন অশ্বিন। ভারতের সাবেক ব্যাটসম্যান রাঠোরের কাছে অশ্বিন জানতে চান, পূজারা কখনো স্পিনারকে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে বাতাসে ভাসানো শট খেলেছেন কি না?

‘সেই চেষ্টা চলছে। তাকে অন্তত একবার ওভার দ্য টপ শট খেলতে রাজি করানোর চেষ্টা করছি। কিন্তু রাজি হচ্ছে না; তবে তাঁর যুক্তিটা চমৎকার’—উত্তর দেন রাঠোর।

অশ্বিন এরপর মজা করে বলেন, ‘ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে আমরা যে সিরিজ খেলব, সেখানে মঈন আলী কিংবা অন্য কোনো স্পিনারকে সে ডাউন দ্য উইকেট গিয়ে তুলে মারলে আমি অর্ধেক গোঁফ চেঁছে খেলতে নামব। এটা আমার খোলামেলা চ্যালেঞ্জ।’

রাঠোরকে অবশ্য অশ্বিনের চ্যালেঞ্জে খুব আশাবাদী মনে হয়নি। তাঁর বিশ্বাস, পূজারা এই চ্যালেঞ্জে আগ্রহ দেখাবেন না, ‘দারুণ এক চ্যালেঞ্জ। দেখা যাক সে এটা গ্রহণ করে কি না। তবে আমার মনে হয় সে আগ্রহ দেখাবে না।’

বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সর্বশেষ টেস্ট সিরিজে উইকেটে নেমে দারুণ মনঃসংযোগ, দৃঢ়তা ও একাগ্রতা দেখিয়েছেন পূজারা।

বিশেষ করে গ্যাবায় সর্বশেষ টেস্টে তাঁর ৯৪ বলে ২৫ এবং ২১১ বলে ৫৬ রানের ইনিংস দুটি ভারতের জয়ে দারুণ ভূমিকা রাখে। এ দুটি ইনিংস খেলার সময় স্টার্ক-কামিন্সদের একটু উঠে আসা বলে বিপদ ঘটতে না দিতে অনেকবার শরীর পেতে দিতে দেখা গেছে পূজারাকে।

default-image

‍শিষ্যের তাই ভূয়সী প্রশংসা করলেন রাঠোর, ‘তার মানসিকতা ভালো লাগে। যেভাবে সে নিজেকে প্রস্তুত করে, তা যেকোনো কোচের জন্যই স্বপ্ন। শেষ টেস্টে সে যেভাবে ব্যাট করেছে তাতে কোনো প্রশংসাই যথেষ্ট নয়। যেভাবে সে শর্ট বলগুলো খেলেছে এবং চোট নিয়ে ব্যাট করেছে, অবিশ্বাস্য।’

৫ ফেব্রুয়ারি চেন্নাইয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে মাঠে নামবে ভারত। চার ম্যাচের এই সিরিজ শেষে পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে দুই দল।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন