default-image
>বড় দলগুলোর বিপক্ষে বেশি বেশি ম্যাচ খেলতে চায় বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল

মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে হেরেছে বাংলাদেশ। ক্যানবেরার মানুকা ওভালে আজ বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ মেগ ল্যানিংয়ের অস্ট্রেলিয়া। স্বাভাবিকভাবেই এ ম্যাচে শক্তি এবং অভিজ্ঞতায় পিছিয়ে সালমা খাতুনের দল। কিন্তু পিছু হটার পথ নেই। সেমিফাইনালের আশা টিকিয়ে রাখতে এ ম্যাচ জিততেই হবে বাংলাদেশকে। ২ ম্যাচে ১ জয় তুলে নেওয়া অস্ট্রেলিয়াও রয়েছে চাপে। তবে জয় তুলে নেওয়ার লক্ষ্যেই মাঠে নামার কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশের অভিজ্ঞ পেসার জাহানারা আলম।

অস্ট্রেলিয়ায় এর আগে কখনো খেলেনি বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। বিশ্বকাপ দিয়েই অস্ট্রেলিয়ার উইকেট ও কন্ডিশনে খেলার অভিজ্ঞতা হচ্ছে সালমাদের। প্রথম ম্যাচে ভারতের ১৪২ রান তাড়া করতে নেমে হারতে হয় ১৮ রানে। তবে এ ম্যাচে বাংলাদেশের খেলার প্রশংসা করেছেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মেগ ল্যানিং, ‘পরের ম্যাচটা বাংলাদেশের বিপক্ষে। ওরা ভারতের বিপক্ষে ভালো খেলেছে। খুব ভালো খেলতে হবে আমাদের।’

বাংলাদেশ থেকে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন জাহানারা। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দলের লক্ষ্য জানালেন তিনি, ‘আমরা অবশ্যই জয়ের জন্য মাঠে নামব। আগের ম্যাচে কী হয়েছে সেটি কোনো বিষয় না। এটা খেলারই অংশ। আমরা এ ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে চাই। নিজেদের খেলাটা খেলতে পারলে ফলটা হয়তো পাল্টাবে।’

টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সংস্করণে এর আগে কখনো অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হওয়ার সুযোগ পায়নি বাংলাদেশের মেয়েরা। সে আক্ষেপই ঝরল জাহানারার কণ্ঠে। প্রস্তুতি বলতে শুধু অস্ট্রেলিয়া দলের খেলার ভিডিও দেখা, ‘হ্যাঁ, শুধু ভিডিও দেখে প্রস্তুতি নিচ্ছি। এটা আমাদের চতুর্থ বিশ্বকাপ হলেও এর আগে কখনো তাদের সঙ্গে খেলার সুযোগ পাইনি। এবারই প্রথম খেলছি। এ কারণে শুধু ভিডিও দেখে প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে।’

অস্ট্রেলিয়া বর্তমানে এ টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দল। খেলছেও ঘরের মাঠে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ এ ম্যাচে মনস্তাত্ত্বিকভাবেই একটু পিছিয়ে। তবে জাহানারা জানালেন, বড় দলগুলোর বিপক্ষে বেশি বেশি খেলার সুযোগ পেলে প্রস্তুতি নিতে সুবিধা। অভিজ্ঞতাও বাড়ে। জাহানারা বলেন, ‘আমরা খেলার পর্যাপ্ত সুযোগ পাচ্ছি না। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নের মতো বড় দলের বিপক্ষে খেলতে গেলে সমস্যা হবেই। তবে আমাদের হাতে তো কিছু নেই। এসব ভিডিও, বিশ্লেষণ করেই প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে। র‌্যাঙ্কিংয়ে ওপরে থাকা দলগুলোর সঙ্গে আমরা খেলার পর্যাপ্ত সুযোগ পাই না।’

বিশ্বকাপ শুরুর আগে অস্ট্রেলিয়ায় ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেছে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মেয়েরা। এটা ছিল তাদের বিশ্বকাপের প্রস্তুতি। জাহানারা এ উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে বলেন, ‘এক সপ্তাহ আগে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলেছে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। ফাইনালে ভারত হারলেও ওরা কিন্তু (বিশ্বকাপে) প্রথম ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে। এটাই পার্থক্য। বড় দলগুলোর সঙ্গে নিয়মিত খেললে তখন ভালো করার সম্ভাবনা বাড়ে। হ্যাঁ, আমরা কিছুটা পিছিয়ে আছি। অতটা অভিজ্ঞতা নেই।’

ভারত ও শ্রীলঙ্কার উদাহরণও দিলেন ২৬ বছর বয়সী এ পেসার, ‘আমরা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও খেলি। কিন্তু সেটি শুধু অনূর্ধ্ব-২৩ পর্যায়ে। ত্রিদেশীয় সিরিজ কিংবা ভারতে চার জাতির সিরিজে কিন্তু ভারত জাতীয় দলের ক্রিকেটারেরা খেলেনি। শুধু ‘এ’ ও ‘বি’ দল খেলেছে। আর ছিল থাইল্যান্ড। ওরা তো নতুন দল। এসবের প্রভাব থাকবেই। তবে আমরা এসব নিয়ে বসে নেই। নিজেদের প্রস্তুতি নিয়ে সামনে এগোতে চাই।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0