মাঠের বাইরে বেশ ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন রায়না।
মাঠের বাইরে বেশ ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন রায়না। ছবি: টুইটার

অনেক নাটকের পর করোনাভাইরাসকে পাশ কাটিয়ে দুবাইয়ে হলো আইপিএল। সেখানে দলের সঙ্গে গিয়েও টুর্নামেন্ট শুরুর আগে হঠাৎ সুরেশ রায়নার চলে আসা নিয়ে গুঞ্জন কম ছড়ায়নি। কেউ বলেছিলেন, চেন্নাই সুপার কিংসে কয়েকজনের করোনা ধরা পড়ায় ভয়ে দল ছেড়ে গেছেন রায়না। সংবাদমাধ্যমে আরেকটা গুঞ্জনও উঠেছিল, হোটেলে রুম পছন্দ না হওয়ায় নাকি মহেন্দ্র সিং ধোনি ও চেন্নাইয়ের কর্মকর্তাদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে দল ছেড়ে ভারতে চলে আসেন রায়না!

টুর্নামেন্টের প্রায় দুই মাস পর অবশেষে এ নিয়ে মুখ খুললেন চেন্নাই সুপার কিংসের ভারতীয় বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। পারিবারিক বিশেষ প্রয়োজনেই সে সময় তড়িঘড়ি করে দুবাই ছেড়ে ভারতে ফিরতে হয়েছিল বলে জানিয়েছেন রায়না।

বিজ্ঞাপন
default-image

তাঁর কোনো আক্ষেপ আছে কি না—ভারতীয় দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়াতে এ প্রশ্নে রায়নার উত্তর, ‘অনুতাপ বা আক্ষেপ কেন থাকবে? আমি আমার ছেলেমেয়ের সঙ্গে সময় কাটিয়েছি, পরিবারের প্রয়োজনে এখানে ফিরে এসেছি।’

প্রাথমিক সূচিতে মে মাসে থাকলেও করোনার কারণে কয়েক দফা পেছানো হয় এবারের আইপিএল। পরে ভারতে করোনার প্রকোপ দেখে গত সেপ্টেম্বরে সেটি আয়োজিত হয় দুবাইয়ে। সেখানে নিজের দল চেন্নাইয়ের সঙ্গে গিয়েছিলেন রায়না। কিন্তু আইপিএল শুরুর দিন কয়েক আগে খবর আসে, চেন্নাই ক্যাম্পে ১৩ জনের মতো করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে!

এর মধ্যেই আরও বড় চমক হয়ে আসে রায়নার দুবাই থেকে ভারতে চলে আসা। হোটেলের কক্ষ নিয়ে অসন্তোষের গুঞ্জনই তখন প্রথমে বেশি চাউর হয়েছিল। চেন্নাইয়ের মালিক এন শ্রীনিবাসনও তখন বিরক্তির সুরে বলেছিলেন, ক্রিকেটাররা ‘প্রিমা ডোনা’র মতো। ‘আমার কথা হচ্ছে, আপনি খুশি না থাকলে চলে যান। এখানে জোর করার কিছু নেই। মাঝেমধ্যে সাফল্যটা অনেকের মাথায় চড়ে বসে! ক্রিকেটাররা প্রিমা ডোনার মতো...কিংবা দিন ফেলে আসা মেজাজি অভিনেতার মতো। চেন্নাই সুপার কিংস সব সময়ই একটা পরিবারের মতো ছিল, এখানে সব সিনিয়র ক্রিকেটারই মিলেমিশে থাকতে শিখেছে,’ আউটলুক নামের সংবাদমাধ্যমকে তখন বলেছিলেন শ্রীনিবাসন।

default-image

কিন্তু তার কয়েক দিন পরই ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে আরেকটা কারণ জানা যায় রায়নার ফিরে আসার, যেটি মর্মান্তিক। পাঞ্জাবে ডাকাতের হাতে খুন হন রায়নার চাচা ও চাচাতো ভাই। টাইমস অব ইন্ডিয়ায় রায়নার সাক্ষাৎকারেও সেই ঘটনার সত্যতার প্রমাণই মিলল, ‘আমার সত্যিই তখন পরিবারের সঙ্গে থাকা খুব জরুরি ছিল। পাঞ্জাবে একটা ঘটনা ঘটেছিল, আমার পরিবারের তখন আমাকে দরকার ছিল। এই মহামারির মধ্যে আমার স্ত্রীর আমাকে পাশে দরকার ছিল।’

এত দিনের খেলোয়াড়ি জীবনে জীবন আর খেলার মধ্যে ভারসাম্যটা করতে শিখেছেন বলেই দাবি রায়নার, ‘২০ বছর ধরে ক্রিকেট খেলছি। জানি আরও খেলব। কিন্তু যখন পরিবারের প্রয়োজন হবে, তখন আপনাকে সেখানেই থাকতে হবে। সে সময় আমার মনে হয়েছিল ওটাই (ভারতে ফিরে যাওয়া) ঠিক কাজ।’

রায়নার ওভাবে ফিরে আসায় বিরক্ত চেন্নাই ম্যানেজমেন্ট তাঁকে আগামী বছরের আইপিএলে দলে রাখবে না বলেই গুঞ্জন ছিল। কিন্তু কয়েক দিন আগে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে চেন্নাই। আইপিএলে ৩৩.২৮ গড়ে ৪৫২৭ রান করে চেন্নাইয়ের ইতিহাসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক রায়নাকে দলে রাখবে তারা।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন