default-image

আইপিএল বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও ধনী ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ। অনেক ক্রিকেটারই এখানে খেলতে মুখিয়ে থাকেন। প্রয়োজনে জাতীয় দল ফেলে খেলতে চলে যান সেখানে। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকার কিছু তারকা ক্রিকেটার জাতীয় দলের সিরিজের মাঝপথে আইপিএলকেই প্রাধান্য দিয়ে সেখানে গেছেন। পাকিস্তানের সাবেক পেসার আকিব জাভেদ মনে করেন, আইপিএলে প্রচুর টাকা উপার্জনের হাতছানি এড়িয়ে থাকা ক্রিকেটারদের জন্য প্রায় অসম্ভব। এ কারণে বিভিন্ন দেশের ক্রিকেট বোর্ড খেলোয়াড়দের ধরে রাখতে আইপিএলের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পারবে না বলেই মনে করেন আকিব জাভেদ।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডের পর আর জাতীয় দলের সঙ্গে থাকেননি কুইন্টন ডি কক-কাগিসো রাবাদারা। তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ ২৮ রানে হেরে সিরিজও ২-১ ব্যবধানে খোয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ক্রিকেট পাকিস্তানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ নিয়ে কথা বলেন পাকিস্তানের হয়ে ২২ টেস্ট ও ১৬৩ ওয়ানডে খেলা আকিব জাভেদ, ‘আইপিএল ও ভারত (বিসিসিআই) খুবই শক্তিশালী। এর অর্থ হলো অন্য কোনো দেশের বোর্ড ক্রিকেটারদের সেখানে খেলতে যাওয়া থেকে বিরত রাখতে চাইলে তাদের প্রচুর টাকা দিয়ে খেলাতে হবে, যেটা খুবই কঠিন কাজ। মাত্র দেড় মাসের মতো খেলেই সেখানে (আইপিএল) ১.৫ মিলিয়ন ডলারের মতো আয় করেন ক্রিকেটাররা। এই অঙ্কটা জাতীয় দলে খেলে পাওয়া অর্থের প্রায় দ্বিগুণ। এ ছাড়া প্রশাসনিক নানা কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট তো এমনিতেই ভুগছে।’

default-image
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানের পেসার শাহীন আফ্রিদি ও যশপ্রীত বুমরার মধ্যে তুলনাও টেনেছেন আকিব জাভেদ। টেস্টে ৫৪ ও ওয়ানডেতে ১৬২ উইকেট নেওয়া সাবেক এ পেসার মনে করেন, শাহীন আফ্রিদিকে ভালো করে পরিচর্যা করা উচিত পাকিস্তানের, ‘যশপ্রীত বুমরা খুব ভালো বোলার। সে প্রায় সবকিছুই পারে। ডেথ ওভারের বোলিংয়ে সে এই মুহূর্তে শাহীন আফ্রিদির চেয়ে ভালো। তবে নতুন বলে শাহীন তার চেয়ে এগিয়ে। শাহীনে সব ম্যাচ খেলানো তার প্রতি অবিচার। তাকে ঠিকমতো পরিচর্যা করা উচিত পাকিস্তান ম্যানেজমেন্টের। দল সিরিজ হেরেছে, এমন পরিস্থিতিতে তাকে খেলা উচিত নয় ম্যানেজমেন্টের কিংবা ঘুরিয়ে–ফিরিয়ে খেলানোর ভালো পদ্ধতি চালু করা উচিত। শুধু গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচগুলোই খেলা উচিত শাহীনের।’

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে পাকিস্তানের সিরিজ জয়ের প্রশংসাও করেন আকিব জাভেদ, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফর সব সময়ই চ্যালেঞ্জিং। পাকিস্তানের ওয়ানডে সিরিজ জয়টা তাই অসাধারণ অর্জন। ব্যাটিংটা সব সময়ই ভুগিয়েছে আমাদের। কিন্তু ফখর জামান ও বাবর আজম দারুণ ব্যাট করেছে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন