আইপিএলে এবারও শিরোপার দাবিদার মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।
আইপিএলে এবারও শিরোপার দাবিদার মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।ছবি: টুইটার

বিশ্বকাপ ফুটবলের ট্রফি পাক্কা ১৮ ক্যারট সোনায় বানানো। বলা হয়, খেলাধুলার জগতে এর চেয়ে সুন্দর ট্রফি হয় না। তা হতে পারে, কিন্তু মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের কাছে বিশ্বকাপ ফুটবলের ট্রফির চেয়েও বেশি সোনায় মোড়ানো এক ‘ট্রফি’ কিংবা ‘রত্ন’ আছে। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও বিশ্লেষক আকাশ চোপড়ার চোখে রোহিত শর্মা মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের ২৪ ক্যারট সোনায় মোড়ানো খেলোয়াড়।

আইপিএল শুরু হবে ৯ এপ্রিল। চেন্নাইয়ে প্রথম দিন মুম্বাইয়ের মুখোমুখি হবে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। আইপিএলের ইতিহাসে মুম্বাই সবচেয়ে সফল। পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজি দলটি। গত সংস্করণে প্রায় অপ্রতিরোধ্যভাবে দিল্লি ক্যাপিটালসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন মুম্বাই। এবারও আইপিএল শিরোপা জয়ের শক্ত দাবিদার মুম্বাই।

বিজ্ঞাপন

মুম্বাই আইপিএলে এমন অপ্রতিরোধ্য কেন, তা ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করেছেন আকাশ চোপড়া।

ভারতের হয়ে ১০ টেস্ট খেলা সাবেক এ ব্যাটসম্যান নিজের ফেসবুক পেজে বলেন, ‘ভারতীয় খেলোয়াড়দের অংশটাই মুম্বাইয়ের সবচেয়ে বড় শক্তি। রোহিত শর্মা, সূর্যকুমার যাদব, ঈশান কিষান, হার্দিক পান্ডিয়া, ক্রুনাল পান্ডিয়া, যশপ্রীত বুমরারা আছেন। একাদশে তাদের খেলা শতভাগ নিশ্চিত এবং তারা সবাই নিজ নিজ সামর্থ্যেই ম্যাচ জেতানো খেলোয়াড়।’

এরপরই রোহিতের প্রসঙ্গে তোলেন আকাশ চোপড়া, ‘কোনো দলেই এমন শক্তিশালী ভারতীয় অংশ নেই। কেননা, সাদা বলে রোহিত শর্মার মতো কোনো ব্যাটসম্যান পাবেন না। বুমরার মতো বোলার পাবেন না কিংবা হার্দিকের মতো অলরাউন্ডার পাবেন না কোথাও। ক্রুনাল তো সামর্থ্যে তার খুব কাছাকাছি। ঈশান ও সূর্যকুমার রীতিমতো বিপ্লব ঘটিয়েছে।’

মুম্বাইয়ের শক্তির জায়গা নিয়ে কথা বলার সময়ও রোহিতের প্রসঙ্গ টানেন আকাশ, ‘দলটির শক্তিমত্তার দ্বিতীয় পর্যায় হলো রোহিতের অধিনায়কত্ব। সে ২৪ ক্যারট সোনায় মোড়ানো, সবচেয়ে ভালো মাপে কাটা হীরা—যে খেলাটা খুব ভালোভাবে বোঝে। ম্যাচ কোন দিকে যাচ্ছে, সেটা তার মুখ দেখে বোঝা যাবে না। তবে সে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে, যে কথাটা বলার চেয়ে করে দেখানো কঠিন।’

মুম্বাইয়ের পেস বিভাগের শক্তি নিয়েও কথা বলেন খ্যাতিমান এই ক্রিকেট বিশ্লেষক, ‘দলটির শক্তিমত্তার তৃতীয় ধাপ হলো পেস বিভাগ। সবচেয়ে ভালো পেস আক্রমণ তাদের। বুমরা, ট্রেন্ট বোল্ট, নাথান কুল্টার-নাইল, ধাওয়াল কুলকার্নিরা আছেন। পেস আক্রমণে শুধু দিল্লিই তাদের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে। ওদের নরকিয়ে ও কাগিসো রাবাদা আছে। তবে বুমরার কোনো ভারতীয় বিকল্প নেই তাদের (মুম্বাই)। কারণ, বুমরা কিংবা সানরাইজার্সের ভুবনেশ্বররা একজনই হয়ে থাকেন।’

টানা দুই মৌসুমে আইপিএল শিরোপা জিতে এবার হ্যাটট্রিক জয়ের সামনে মুম্বাই। রোহিত শর্মার দল এবার কী করে, সেটাই দেখার বিষয়।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন