চোট পেয়ে সতীর্থদের সহায়তায় মাঠ ছাড়ছেন শ্রেয়াস আইয়ার।
চোট পেয়ে সতীর্থদের সহায়তায় মাঠ ছাড়ছেন শ্রেয়াস আইয়ার।ছবি: টুইটার

গত আইপিএলে শ্রেয়াস আইয়ারের ওপর দলের দায়িত্ব ছেড়ে দিয়েছিল দিল্লি ক্যাপিটালস। নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন আইয়ার, দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছিলেন। ৩৪.৬০ গড়ে ৫১৯ রান করেও অবশ্য অধরা আইপিএল শিরোপাটা এনে দিতে পারেননি দিল্লিকে। ফাইনালে টুর্নামেন্টের সফলতম দল মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের কাছে হেরে গেছে দিল্লি। তবু আইয়ারের পারফরম্যান্স নিয়ে কোনো অতৃপ্তি ছিল না ফ্র্যাঞ্চাইজিটির। সেই আইয়ার এবার খেলবেন না আইপিএল।

কয়েক দিন আগেই ঘটা করে দিল্লি জানিয়ে দিয়েছে, এ মৌসুমে দলটির নেতৃত্ব পাচ্ছেন ঋষভ পন্ত। এ সিদ্ধান্তের পেছনে ভূমিকা রেখেছে আইয়ারের না থাকা। আইপিএলের ঠিক আগমুহূর্তে ডান কাঁধে চোট পেয়েছেন আইয়ার। তরুণদের ভরসা মানার যে নীতি গ্রহণ করেছে দিল্লি, সে পথে ২৬ বছর বয়সী আইয়ারের বিকল্প হিসেবে তারা বেছে নিয়েছে ২৩ বছর বয়সী ভারত দলের উইকেটরক্ষককে।

জমজমাট এক টুর্নামেন্টে দর্শক হিসেবে কাটাতে হবে আইয়ারকে। তবে না খেলার দুঃখটা অন্য এক দিক থেকে ভুলতে পারেন এই ব্যাটসম্যান। না খেললেও চুক্তির পুরো ৭ কোটি রুপিই পাবেন আইয়ার।

বিজ্ঞাপন
default-image

আইপিএলের নিলামে যে অঙ্কটা ওঠে, সেটা সব সময় পান না ক্রিকেটাররা। ফ্র্যাঞ্চাইজির পক্ষ থেকে বোনাসও যে দেওয়া হয় না, তেমন নয়। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো নিলামে ওঠা অঙ্কের ক্ষেত্রে একটি নিয়ম মানে। আর সেটি হলো, কোনো খেলোয়াড় টুর্নামেন্টে দলের সব ম্যাচ খেললেই কেবল পূর্ণ অর্থ পাবেন। আর যদি ম্যাচ খেলার জন্য দলের সঙ্গে থাকার পর মূল একাদশে জায়গা না পান, সে ক্ষেত্রে সে ম্যাচের ৮০ ভাগ অর্থ দেয় অনেক দল। যদি টুর্নামেন্টের মাঝপথে কেউ যোগ দেন, তবে আগে যে ম্যাচগুলোর জন্য তাঁকে ফ্র্যাঞ্চাইজি পায়নি, সেগুলো হিসাব থেকে বাদ পড়ে। আর পুরো টুর্নামেন্ট থেকে সরে গেলে পুরোটাই বাদ।

আইয়ার তবু তাঁর জন্য বরাদ্দের পুরো অর্থই পাবেন। তাঁর এ সৌভাগ্য ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের একটি নিয়মের কারণে। বিসিসিআইয়ের বিমার নিয়মের অধীনেই চোটের কারণে ক্ষতিপূরণ পাবেন আইয়ার। সে সুবাদেই দিল্লির গতবারের অধিনায়ক তাঁর আইপিএলের অর্থ পুরোটা বুঝে পাচ্ছেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে গিয়ে হাতে চোট পেয়েছেন এই ব্যাটসম্যান। ৮ এপ্রিল হাতে অস্ত্রোপচার করা হবে তাঁর। এ অবস্থাতেও তাঁকে পুরো ৭ কোটি রুপি খসবে দিল্লির।

default-image

২০১১ সালে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড তাদের বিমা পলিসিতে একটি নিয়ম যোগ করেছিল। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা কোনো খেলোয়াড় যদি চোট বা দুর্ঘটনার কারণে আইপিএলে খেলতে না পারেন, তাঁকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে এবং এই চোটে পড়ার ঘটনাটি জাতীয় দলের জার্সিতে হতে হবে। আইয়ার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলতে গিয়ে চোটে পড়ায় এই নিয়মের সুবিধা নিতে পারছেন।

আইয়ার সুবিধা পেলেও দিল্লির দুর্ভাগ্য এতে বাড়ছে বৈ কমছে না। আইয়ারের মতো একজন পারফরমারকে পাচ্ছে না তারা, পুরো আইপিএল ক্যারিয়ার দিল্লিতে কাটানো আইয়ার এ দলের হয়ে ২২০০ রান করেছেন। দিন দিন তাঁর রান তোলার গতিটাও বাড়ছে। জাতীয় দলের হয়ে দারুণ কিছু ইনিংস খেলার ফলে প্রাপ্ত আত্মবিশ্বাস এবারের আইপিএলে কাজে লাগবে বলেই ভেবেছিল দিল্লি। কিন্তু পুরো মৌসুমের জন্য তাঁকে হারিয়ে বসেছে দল। এখন আবার ৭ কোটি রুপির বোঝাও যোগ হলো।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন