গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে মাশরাফির সঙ্গে হাত মেলাচ্ছেন রাবাদা।
গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে মাশরাফির সঙ্গে হাত মেলাচ্ছেন রাবাদা। ছবি: রয়টার্স

‘মিচেল স্টার্ক!’ এতটুকুই লেখা ছিল ওই টুইটে। পাশে দুই হাত জড়ো করার ইমোজি। আর সেটির পাশে হ্যাশট্যাগে লেখা, ‘সম্মান।’

কাল আইপিএলের নিলাম চলার সময়ে টুইটটা করেছিলেন ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর বিশ্লেষক গৌরভ সুন্দরারমন। টুইটটা দেখলেই ইঙ্গিতটা বোঝা যায়, আইপিএলের নিলামে কাল ফাস্ট বোলারদের জন্য যেভাবে দর হাঁকিয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো, সেখানে স্টার্কের দাম কত উঠত!

শুধু স্টার্কই কেন, ফাস্ট বোলার আর অলরাউন্ডারদের জন্য আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো কাল যেভাবে হুমড়ি খেয়ে পড়েছে, তাতে কাগিসো রাবাদাকে নিয়েও তো আলোচনা হওয়া উচিত! আইপিএলে দক্ষিণ আফ্রিকার ২৫ বছর বয়সী ফাস্ট বোলারের দল দিল্লি ক্যাপিটালস তাঁকে রেখে দেওয়ায় এবার নিলামে তাঁর নাম ওঠেনি। উঠলে কত দাম হতো তাঁর কে জানে! গত মৌসুমে আইপিএলে ৩০ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারিই যে ছিলেন রাবাদা!

তা তাঁর জন্য এবার নতুন করে খরচ করতে না হোক, কিন্তু রাবাদাকে কি এবার টুর্নামেন্টে পুরোটা সময় পাবে দিল্লি? সে সময় দক্ষিণ আফ্রিকার সিরিজ থাকতে পারে। আর রাবাদাও জানিয়ে দিয়েছেন, দেশের হয়ে খেলাই তাঁর কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

বিজ্ঞাপন
default-image

এবারের আইপিএল কবে শুরু হবে, সেটির দিন-তারিখ এখনো একেবারে নির্দিষ্ট হয়নি। শুধু জানা গেছে, এপ্রিলের মাঝামাঝিতে শুরু হবে ভারতের ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ১৪তম সংস্করণ। কিন্তু এর মধ্যে কদিন আগে খবর আসে, পাকিস্তান মার্চের শেষ দিকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাবে।

কদিন আগেই পাকিস্তান সফর করে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা দল। সেই সফর শেষ হওয়ার আগেই খবর আসে, আগামী ২ থেকে ১৬ এপ্রিল দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তিন ওয়ানডে ও চারটি টি-টোয়েন্টি খেলবে পাকিস্তান দল। সব ঠিক থাকলে পাকিস্তান দল দক্ষিণ আফ্রিকায় যাবে ২৬ মার্চ।

সেই সিরিজের সূচি ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই আলোচনা হচ্ছিল, পাকিস্তানের সফরের এই সূচি কি আইপিএলে বাগড়া দেবে? পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা তো ভারত-পাকিস্তানের রাজনৈতিক দ্বন্দ্বের বলি হয়ে আইপিএলে খেলতে পারেন না, কিন্তু পাকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকার এই সিরিজের সূচির কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার জাতীয় দলে খেলা ক্রিকেটারদের আইপিএলে পুরো সময় পাওয়া নিয়ে সংশয় তৈরি হয়।

কারণ, আইপিএল এপ্রিলের মাঝামাঝি শুরু হবে, দক্ষিণ আফ্রিকায় পাকিস্তানের সিরিজও শেষ হবে সে সময়েই। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা কবে ভারতে আসবেন, জৈব সুরক্ষাবলয় শেষ করে কবে মাঠে নামতে পারবেন...সেসব প্রশ্ন তো থাকেই।

এপ্রিলের মাঝামাঝিতে শুরু হবে ভারতের ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ১৪তম সংস্করণ। আর আগামী ২ থেকে ১৬ এপ্রিল দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তিন ওয়ানডে ও চারটি টি-টোয়েন্টি খেলবে পাকিস্তান দল।

প্রশ্নগুলো দিল্লি ক্যাপিটালসকেই বেশি ভাবানোর কথা। রাবাদা তাঁদের বোলিং আক্রমণের কত বড় ভরসা, সেটি তো গত মৌসুমে আইপিএলে দক্ষিণ আফ্রিকান ফাস্ট বোলারের পারফরম্যান্সই বলে! ১৭ ম্যাচে ৩০ উইকেট নেওয়ার পথে দুই ম্যাচে নিয়েছেন চারটি করে উইকেট। সেই রাবাদাকেই হয়তো এবার শুরুর কয়েকটি ম্যাচে পাবে না দিল্লি। রাবাদারও যে এতে কিছু আসে-যায় না!

আইপিএল না জাতীয় দল—এই প্রশ্নে সময়ের অন্য অনেক ক্রিকেটারের আইপিএলের অর্থের ঝনঝনানিতেই আগ্রহ বেশি হলেও রাবাদা এখানে ব্যতিক্রম। সোজা জানিয়ে দিলেন, আইপিএলের জন্য জাতীয় দলের হয়ে খেলায় কোনো ছাড় দেবেন না।

‘আমার কাছে সবার আগে দেশ। আইপিএল যখন শুরু হবে, সেটি যদি পাকিস্তানের বিপক্ষে আমাদের সিরিজের সূচির সঙ্গে সাংঘর্ষিক হয়, সে ক্ষেত্রে হয়তো আইপিএলের প্রথম সপ্তাহটা খেলতে পারব না আমি। দিল্লি (ক্যাপিটালস) ভারতে আমার ঘরের মতো, কিন্তু জাতীয় দলের দায়িত্ব আমার কাছে সবকিছুর চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ’—দক্ষিণ আফ্রিকার সংবাদমাধ্যম ইনডিপেনডেন্ট অনলাইনে বলেছেন রাবাদা।

রাবাদার কথাগুলো হয়তো অন্য অনেক ক্রিকেটারের জন্য শিক্ষাও!

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন