বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রায় এক যুগ ধরে খেলছেন আইপিএল। এর আগে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু, কলকাতা নাইট রাইডার্সের জার্সি গায়ে দেখা গিয়েছে ক্রিস গেইলকে। ভারতের সংস্কৃতি, ভাষা, রীতিনীতি বেশ ভালোই জানা হয়ে গেছে তাঁর।

এখন আছেন পাঞ্জাব কিংস শিবিরে। দল বদলালেও গেইল আছেন সেই আগের মতোই। মাঠ ও মাঠের বাইরে বিনোদন দেওয়াই যার লক্ষ্য। জাত ‘এন্টারটেইনার’ বুঝি একেই বলে! এই ‘এন্টারটেইনার’ গেইলের আরেকটা নতুন দিক এবার সবার সামনে তুলে ধরেছেন তাঁর আইপিএল–সতীর্থ, পাঞ্জাব কিংসের ভারতীয় পেস বোলার মোহাম্মদ শামি। জানিয়েছেন, দলের পাঞ্জাবি সতীর্থদের কাছ থেকে মহা উৎসাহে পাঞ্জাবি ভাষা শিখছেন তিনি!

বয়স হয়ে গিয়েছে ৪১। তাতে কী? শেখার তো আর বয়স নেই। আর সে কথাটাই হয়তো ঘুরপাক খায় গেইলের মনে। না হয় এই বয়সে এসে নতুন ভাষা শেখার জন্য এত তোড়জোড় কেন হবে? শামি জানিয়েছেন, ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতি গেইল যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল।

ড্রেসিংরুমে সুযোগ পেলেই সতীর্থদের সঙ্গে হিন্দিতে কথা বলার চেষ্টা করেন গেইল, ‘ক্রিস গেইল হিন্দিতে কথা বলতে বড্ড ভালোবাসে। অধিকাংশ সময়ে সে হিন্দিতেই কথা বলে, এই ভাষায় মজা করে। দেখা গেল ইংরেজিতে কথা বলছে, হুট করে হিন্দিতে কথা বলা শুরু করে দিল।’

default-image

শুধু কথা বলাই নয়, গেইল হিন্দিতে গান গেয়েও মাতিয়ে রাখেন শামিদের, ‘আমরা যেভাবে হিন্দিতে গুন গুন করে গান গাই, ও ঠিক সেভাবে কথা বলতে চায় হিন্দিতে।’
তবে শুধু হিন্দি নয়, সম্প্রতি ভারতে প্রচলিত আরেকটা ভাষায় মজেছেন এই কিংবদন্তি।

এবিপি আনন্দকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শামি তেমনটাই জানিয়েছেন, ‘আমাদের দলের পাঞ্জাবি খেলোয়াড়েরা ওকে আগ্রহ নিয়ে পাঞ্জাবি ভাষাও শেখাচ্ছে। ও বহু বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে। অনেক অভিজ্ঞ সে। মানুষ হিসেবে ও দুর্দান্ত। ভারতীয় সংস্কৃতিকে ও অনেক ভালোবাসে।’

মৌসুমের প্রথম ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে ২৮ বলে ৪০ রান করেছেন গেইল। কিন্তু গত রাতে চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে সতীর্থদের মতো গেইলের ব্যাটও হাসেনি, ১০ বলে মাত্র ১০ রান করেছেন গেইল। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে আগামীকাল নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নামবেন গেইলরা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন