বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সিডনিতে ফিরে চোট থেকে সেরে ওঠার পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরু করবেন কামিন্স। চোটটা তেমন গুরুতর কিছু না হলেও আইপিএলের বাকি আর খেলতে পারবেন না। তবে আগামী মাসে অস্ট্রেলিয়া দলের শ্রীলঙ্কা সফর শুরুর আগে তাঁর সেরে ওঠার সম্ভাবনা রয়েছে।

১২ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে সপ্তম কলকাতা। সমান ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে চারে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। কামিন্স কলকাতার হয়ে এবার ৫ ম্যাচ খেলেছেন। এর মধ্যেই আইপিএলের ইতিহাসে যৌথভাবে দ্রুততম অর্ধশতকের রেকর্ড গড়েছেন, মোট ৭ উইকেটের মধ্যে ৩টি পেয়েছেন মুম্বাইয়ের বিপক্ষে কলকাতার সর্বশেষ ম্যাচে।

কলকাতার প্লে–অফে ওঠার পথ যেহেতু খুব কঠিন, এদিকে অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের সামনেও ব্যস্ত সূচি থাকায় কামিন্স চোট নিয়ে আর আইপিএলে খেলার ঝুঁকি নেননি। শ্রীলঙ্কা সফরে টি–টোয়েন্ট সিরিজ থেকে এমনিতেই বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে ২৯ বছর বয়সী এই ফাস্ট বোলারকে। আগামী ১৮ মাসে ব্যস্ত সূচি অস্ট্রেলিয়া দলের সামনে।

শ্রীলঙ্কায় তিন সংস্করণের সিরিজ শেষে অক্টোবরে ঘরের মাঠে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, এরপর ঘরেই পাঁচ টেস্টের সিরিজ, অ্যাশেজ এবং ২০২৩ সালে অক্টোবরে ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে ভারত সফরেও যাবে অস্ট্রেলিয়া। তবে কলকাতা নাইট রাইডার্সের পক্ষ থেকে এ নিয়ে এখনো কিছু বলা হয়নি।

জানা গেছে, মৌসুমের বাকি সময়ে কামিন্সের বিকল্প হিসেবে অন্য কোনো বিদেশিকে দলে নেবে না কলকাতা।

পাকিস্তান সফরে দারুণ খেলে এবার আইপিএলে এসেছিলেন কামিন্স। লাহোর টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৮ উইকেট নিয়ে জয়ে দারুণ ভূমিকা রাখেন। তার আগে অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক হিসেবে জেতান অ্যাশেজ।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন