বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গতকাল রাহুলের আউট কিছুটা আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। প্রথমে ইংল্যান্ডের জোরালো আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার অ্যালেক্স হোয়ার্ফ। রিভিউ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ড। ভিডিও রিপ্লে দেখে তৃতীয় আম্পায়ার সিদ্ধান্ত পাল্টেছেন। আউটের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু সে সিদ্ধান্ত পছন্দ হয়নি ৪৬ রানে থাকা রাহুলের। তৃতীয় আম্পায়ার আউট দেওয়ার পরও, মাঠের আম্পায়ারদের কাছে এই আউটের সিদ্ধান্ত যে পছন্দ হয়নি, সেটি জানিয়ে দিয়েছেন।

default-image

অ্যান্ডারসনের বলটি খেলার আগে রাহুল যখন ব্যাট নামিয়ে এনেছেন, তখন সেটা তাঁর পেছনে প্যাডে লাগায় একবার শব্দ হয়। সে তুলনায় বল ব্যাটের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় শব্দটা কমই শোনা গেছে। পেছনের প্যাডে বল লাগায় রাহুল নিশ্চিত ছিলেন, তিনি আউট হননি। ওদিকে মাঠের আম্পায়ারও সে কারণেই আউট দেননি। কিন্তু ভিডিও রিপ্লেতে দেখা গেছে প্রথমে পেছনের প্যাডে ব্যাট লাগলেও পরে বল ব্যাটের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময়ও ব্যাটের কোনা ছুঁয়ে গেছে।

আলট্রা–এজে দেখা গেছে, বল ব্যাটের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় স্পাইক দেখা যাচ্ছে। তখন সামনের প্যাডের ধারেকাছে ছিল না ব্যাট। স্থিরচিত্রে ব্যাটের পাশে প্যাড দেখা গেলেও সেটা আসলে ছিল পেছনের প্যাড, যা অনেক পেছনে ছিল। কিন্তু রাহুলের অসন্তোষ ও সেই স্থিরচিত্র দেখে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ শোরগোল তোলার চেষ্টা করেছিলেন অনেক ভারতীয় সমর্থক। কিন্তু সঞ্জয় মাঞ্জরেকারের মতো বিশ্লেষকেরা আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রশংসা করে সে আলোচনা দ্রুতই চাপা দিয়েছেন।

default-image

গতকালের এই ঘটনায় এরই মধ্যে শাস্তি জুটেছে রাহুলের। আজ আইসিসির আচরণবিধি ভাঙার দায়ে শাস্তি দেওয়া হয়েছে তাঁকে। আইসিসির এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘আন্তর্জাতিক ম্যাচে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করা’র অপরাধে দোষী প্রমাণিত হয়েছেন রাহুল এবং এ জন্য তাঁর ম্যাচ ফির ১৫ শতাংশ কেটে নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এক ডিমেরিট পয়েন্টও জুটেছে।

আইসিসি জানিয়েছে, এ ঘটনায় আর শুনানির দরকার হচ্ছে না। কারণ, ব্যাটসম্যান রাহুল ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রডের দেওয়া এই শাস্তি মেনে নিয়েছেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন