বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নতুন দায়িত্ব নিয়ে জাতীয় দলের ড্রেসিংরুমে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ ফিরিয়ে আনার আশ্বাস দিয়েছেন জালাল ইউনুস।

default-image

বিসিবি কার্যালয়ে দীর্ঘ বোর্ড সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘ক্রিকেট পরিচালনার প্রথম কাজ জাতীয় দল–সম্পর্কিত। আমি জাতীয় দলের ড্রেসিংরুমে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ দেখতে চাই। ওটাই আমার লক্ষ্য। এখানে টিম ম্যানেজমেন্ট, স্টাফ, ক্রিকেটারদের নিয়ে যদি স্বাস্থ্যকর পরিবেশ থাকে, সেটা আমাদের ভালো করতে সাহায্য করবে।’

ক্রিকেটের দুর্দিনে দায়িত্ব নেওয়ার চ্যালেঞ্জটাকে দুই হাতে আলিঙ্গন করে নিতে চাইছেন জালাল ইউনুস।

সাবেক এই ক্রিকেটার বলেছেন, ‘ক্রিকেটের স্বার্থে যেকোনো পদক্ষেপ নেওয়ার হলে সেটা আমি নেব। কিন্তু অনেক সময় এমন হয় যে পরিস্থিতিটা অনুকূলে থাকে না। তাই এখন আমি শুধু সবকিছু সঠিক দিকে আনার চেষ্টা করব। এটা খুব কঠিন কিছু নয়। এটা (সবকিছু সঠিক দিকে না থাকা) ভুল–বোঝাবুঝির জন্য হয়। এখানে যদি আমরা ঠিক করে ফেলতে পারি, তাহলে আশা করি, কোনো সমস্যা হবে না।’

বোর্ড সভায় বয়সভিত্তিক ক্রিকেট ও স্কুল ক্রিকেটের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ওবেদ নিজামকে। আম্পায়ার্স কমিটির দায়িত্ব পেয়েছেন ইফতেখার আহমেদ। সালাউদ্দিন চৌধুরীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সিসিডিএমের। এ ছাড়া নতুন নির্বাচিত পরিচালকদের মধ্যে তানভির আহমেদ দায়িত্ব পেয়েছেন বিসিবির মিডিয়া বিভাগের।

এ ছাড়া মার্কেটিং ও বিপিএল কমিটির প্রধানের দায়িত্ব ধরে রেখেছেন শেখ সোহেল। গ্রাউন্ডস প্রধানের দায়িত্ব থাকছেন মাহবুব আনাম। ওয়ার্কিং কমিটির দায়িত্ব থাকছেন এনায়েত হোসেন। বিসিবির ফাইন্যান্স বিভাগেও পরিবর্তন আসেনি। ইসমাইল হায়দার থাকছেন এই কমিটির প্রধান।

নতুন স্থায়ী কমিটি না হলেও জাতীয় দলের বাইরের ক্রিকেটারদের নিয়ে প্রস্তাবিত বাংলা টাইগার্সের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কাজী ইনামকে। টুর্নামেন্ট কমিটির প্রধান আহমেদ সাজ্জাদুল আলম।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন