বেশ ঢাকঢোল পিটিয়েই হচ্ছে আইপিএল।
বেশ ঢাকঢোল পিটিয়েই হচ্ছে আইপিএল। ছবি: আইপিএল

ভারতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। একই সময়ে মাঠে আইপিএল চলায় উঠেছে প্রশ্ন। মৃত্যু ও সংক্রমণের মিছিল এক পাশে সরিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) আইপিএল চালিয়ে যাওয়া কতটুকু যুক্তিসংগত—সেই প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।

অলিম্পিকে সোনাজয়ী ভারতের শুটার অভিনব বিন্দ্রা ও পাকিস্তানের সাবেক পেসার শোয়েব আখতার এ নিয়ে আওয়াজ তুলেছেন। কিন্তু সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, আপাতত আইপিএলের চলতি মৌসুম স্থগিত কিংবা বন্ধ রাখার কোনো ইচ্ছা নেই বিসিসিআইয়ের।

এদিকে বিদেশি কিছু ক্রিকেটার আইপিএল ছেড়ে দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ার অ্যান্ড্রু টাই, কেইন রিচার্ডসন ও অ্যাডাম জাম্পা এরই মধ্যে নিজ নিজ ফ্র্যাঞ্চাইজিকে বিদায় জানিয়েছেন। কারণ তো সবারই জানা।

বিজ্ঞাপন

ভারতে কোভিড পরিস্থিতি ধীরে ধীরে আরও ভয়ংকর হচ্ছে, এর মধ্যে ঠিক সময়ে দেশে পরিবারের কাছে ফিরতে পারবেন কি না, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন ক্রিকেটাররা। যদিও কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জৈব সুরক্ষিত পরিবেশের মধ্যে অন্য যে কারও চেয়ে নিরাপদে রয়েছেন আইপিএলের ক্রিকেটাররা। কিন্তু সংবাদমাধ্যমের কাছে টাই সরাসরি প্রশ্ন রেখেছেন, ‘নিরাপত্তা বিবেচনায় খেলোয়াড়েরা আপাতত নিরাপদ, কিন্তু সেটা কত দিন টিকে থাকবে?’

টাই আরও একটি বাস্তব প্রশ্ন তুলেছেন। ভারতে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিরা পর্যাপ্ত অক্সিজেন পাচ্ছেন না। হাসপাতালগুলোয় রোগী উপচে পড়ায় প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা না পেয়ে মরছেন অনেকে। এ পরিস্থিতি অস্ট্রেলিয়ান পেসারকে বাধ্য করেছে প্রশ্নটি তুলতে, ‘ভারতের জায়গা থেকে দেখলে আমার মনে হয়, এই যে আক্রান্ত ব্যক্তিরা যখন হাসপাতালে ভর্তি হতে পারছেন না, তখন বিভিন্ন কোম্পানি ও সরকার আইপিএলে এত টাকা খরচ করছে কীভাবে?’

সে যা-ই হোক, ভারতের স্থানীয় ক্রিকেটারদেরও পথটা দেখিয়ে দিয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। দিল্লি ক্যাপিটালসের বোলিং অলরাউন্ডার পরিবারের পাশে থাকতে আইপিএল ছেড়েছেন। কিন্তু বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আইপিএল চালিয়ে যাওয়া হবে। তবে কেউ যদি টুর্নামেন্টটি ছেড়ে যেতে চান, তাতে কোনো সমস্যা নেই। বিসিসিআইয়ের এক জ্যেষ্ঠ অফিশিয়াল নাম প্রকাশ না করার শর্তে দেশের সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘এখন পর্যন্ত যা পরিস্থিতি, তাতে আইপিএল চালিয়ে যাওয়া হবে। তবে কেউ যদি ছেড়ে যেতে চায়, তাতে কোনো সমস্যা নেই।’

default-image

আইপিএলের জৈব সুরক্ষাব্যবস্থার প্রশংসা করেছেন দিল্লি ক্যাপিটালসের কোচ রিকি পন্টিং। যদিও বাকিদের মতো তিনিও জানেন, আইপিএলের বাইরে ভারতে যে পরিস্থিতি চলছে এবং আইপিএলে যা চলছে, তা নিয়ে কথা হচ্ছে বাইরে। কিন্তু আইপিএলের জৈব সুরক্ষাব্যবস্থায় ক্রিকেটাররা যে নিরাপদ, সে কথা টুইটারে দিল্লির এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন পন্টিং, ‘বাইরে কী ঘটছে আর এখানে কী হচ্ছে, এ নিয়ে এবারের আইপিএলে সম্ভবত প্রচুর কথা হচ্ছে। তবে আমরা এই মুহূর্তে এই দেশে (ভারতে) সবচেয়ে নিরাপদে আছি। জৈব সুরক্ষিত পরিবেশের মধ্যে আছি। বাইরের কী পরিস্থিতি, তা প্রতিদিন সকালে নাশতার সময় ছেলেদের কাছে শুনে নিই। সবাই কেমন আছে, তাদের পরিবারের কী খবর, এসব বিষয়ে কথা হয়।’

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, গত শনিবার থেকে গতকাল রোববার পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন প্রায় সাড়ে তিন লাখ, যা যেকোনো দেশে এক দিনে সর্বোচ্চ রোগী শনাক্তের নতুন রেকর্ড। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, গত শনিবার থেকে গতকাল রোববার পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭৬৭ জনের।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন