default-image

ক্রিকেট ক্যারিয়ারটা খুব আহামরি নয়। ২০ বছর বয়সে মুম্বাইয়ের রঞ্জি ট্রফির দলে জায়গা পেয়েছিলেন আকিব শেখ। কিন্তু ২৫ ওভার বল করেও কোনো উইকেট পাননি এই পেসার। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে আর ফেরা হয়নি তাঁর। কিন্তু বছরের পর বছর রঞ্জি খেলেও যা করতে পারেন না অনেক ক্রিকেটার, সেটাই পেয়েছেন আকিব। অসাধারণ এক কাজে দেশজুড়ে খ্যাতি মিলেছে তাঁর।


গত বুধবার মুম্বাই মেট্রপলিটানের পশ্চিম কল্যাণ এলাকার এক বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে। আট তলা উঁচু সে বিল্ডিংয়ে আটকে পড়া ৪০জন বাসিন্দাকে দুই সঙ্গীসহ উদ্ধার করেছেন আকিব। ২৯ বছর বয়সী আকিব, আদনান খান (৩৪) ও দানিশ খান (৩৩) মিলে একটি কাঠের মই ব্যবহার করে আগুন লাগা চার্ম স্টার বিল্ডিং থেকে আটকে পড়া মানুষদের পাশের সুন্দ্রা প্লাজায় নিয়ে যান। চার্ম স্টারের ছয় তলা থেকে সবাইকে উদ্ধার করেছেন এ তিন জন।


সেদিনের ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন আকিব, 'সারা দিন বিদ্যুৎ ছিল না। বিকেল সোয়া ছয়টার দিকে বিদ্যুৎ এলে আমি মোবাইল চার্জে দিই, তখন আবার বিদ্যুৎ চলে যায়। হঠাৎ আমার মা চিৎকার শুরু করে যে আগুন লেগেছে। ঘরের দরজা খুলেই দেখি চারপাশে ধোঁয়া, কিছু দেখা যাচ্ছে না।' চার্ম স্টারের ছয়তলাতেই থাকেন আকিবরা।


আগুন লাগার সময় নিচতলায় ছিলেন চারতলার বাসিন্দা দানিশ, 'আমি আকিব ও বিল্ডিংয়ের অন্যদের ফোন দিই। আকিব, আদনান ও কয়েকজন ষষ্ঠতলার গ্যালারিতে গিয়ে সবাইকে সাহায্য করছিল সুন্দ্রা প্লাজার ছাদে নামার জন্য। সবাই আতঙ্কের মধ্যে ছিল। খুব ভয়াবহ কিছু ঘটতে পারত। কিন্তু সময়মতো সব বন্ধুরা মিলে সাহায্য করায় তেমন কিছু ঘটেনি।'

আকিব যোগ করেন, 'আমরা সবাই কালো ধোঁয়া আর দমবন্ধ হওয়ার ভয়ে ছিলাম। আমার ৮০ বছরের দাদী, আমার মা এবং স্ত্রী ঘরেই ছিল। তাদের এবং অন্যদের নিরাপদ স্থানে নিয়ে যেতে পেরেছিলাম। ভাগ্য ভালো সুন্দ্রা প্লাজার উচ্চতা আমাদেরটার চেয়ে কম এবং মাত্র আট ফুট দূরে। ভাগ্যিস, কোনো প্রাণহানি হয়নি এবং কারো মারাত্মক কোনো চোট লাগেনি।'


পরে জানা গেছে, শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগেছিল সেদিন। দমকলবাহিনী এসে পরে আগুন নিভিয়ে ফেলে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0