আফগানিস্তান বাংলাদেশে হাজির হয়েছে বেশ আগে। বিপিএলের শেষটা উপভোগ করেছে, করোনা পরীক্ষায় ‘পজিটিভ’ হওয়ার ধাক্কাও সহ্য করেছে। অবশেষে যে উদ্দেশ্যে আসা, সেটা পূরণ হচ্ছে, আগামীকাল শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ওয়ানডে সিরিজ।

২৩ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তিন ওয়ানডে খেলবে দুই দল। এরপর মার্চের প্রথম সপ্তাহে হবে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ঘরের মাঠের সুবিধা নিয়ে অবশেষে আফগানদের টেক্কা দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে বাংলাদেশ। দ্বিপক্ষীয় সিরিজে যে এখন পর্যন্ত আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ।

২০১৬ ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে তামিমের শতকে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ
ফাইল ছবি

বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান প্রথম মুখোমুখি হয়েছিল ২০১৪ সালে। প্রথম দেখায় ঘরের মাঠে হেরে বসেছিল বাংলাদেশ দল। সে দুঃখ ২০১৪ সালেই ভুলেছে বাংলাদেশ। বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দাপুটে এক জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

দ্বিপক্ষীয় সিরিজে দুই দল প্রথম মুখোমুখি হয়েছে ২০১৬ সালে। ঘরের মাঠে সে সময়টায় বাংলাদেশ উড়ছিল। ওয়ানডেতে টানা পাঁচ ম্যাচ সিরিজ জেতা বাংলাদেশ কিছুটা ধাক্কা খেয়েছিল আফগানিস্তানের সঙ্গে। প্রথম ম্যাচেই বাংলাদেশকে হারানোর খুব কাছাকাছি চলে গিয়েছিল সফরকারীরা। মাশরাফি, তাসকিন ও রুবেল—তিন পেসার জ্বলে উঠে প্রথম ম্যাচে বাঁচিয়ে দিয়েছিলেন স্বাগতিকদের। দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য আর হার আটকানো যায়নি। সিরিজনির্ধারণী ম্যাচে তামিম ইকবালের শতকে আবার দাপটের এক জয়ে সিরিজ নিশ্চিত করে বাংলাদেশ।

দ্বিপক্ষীয় সিরিজে আবার দুই দলের দেখা হয় ২০১৮ সালে। সেটি ছিল আফগানিস্তানের ‘ঘরের মাঠে’। ভারতের দেরাদুনকে ঘর বানানো রশিদ খানদের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলেছে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচে উড়ে যাওয়া বাংলাদেশ শেষ ম্যাচে লড়েছিল। তবে টান টান উত্তেজনার সে ম্যাচেও ১ রানের ঘাটতি থেকে যায় মুশফিকুর রহিমদের। টি-টোয়েন্টি সিরিজে ধবলধোলাই হয় বাংলাদেশ।

দ্বিপক্ষীয় সিরিজে আর একবারই আফগানিস্তানের সঙ্গে দেখা হয়েছে বাংলাদেশের। সেটা ঘরের মাঠেই, টেস্ট সিরিজে। ২০১৯ সালে একমাত্র টেস্টে মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। বৃষ্টি প্রায় দুই দিন ভাসিয়ে নিয়েছিল সে টেস্টের। তবু আফগানদের ২২৪ রানের বিশাল ব্যবধানের জয় আটকাতে পারেনি বাংলাদেশ।

মুখোমুখি লড়াইয়ে আফগানিস্তানই এগিয়ে
গ্রাফিক্‌স : প্রথম আলো

দ্বিপক্ষীয় সিরিজে তাই এগিয়ে আছে আফগানিস্তান।

অবশ্য শুধু দ্বিপক্ষীয় সিরিজে নয়, মুখোমুখি লড়াইয়েও পিছিয়ে বাংলাদেশ। সব সংস্করণ মিলিয়ে ১৫ বার দেখা হয়েছে দুই দলের। তাতে ৮-৭ ব্যবধানে এগিয়ে আফগানিস্তান। ৮ ওয়ানডেতে ৫ বার জয়ী বাংলাদেশ, তিনবার হেসেছে আফগানিস্তান। একমাত্র টেস্টে জিতেছে আফগানিস্তান। আর টি-টোয়েন্টিতে আফগানিস্তান জিতেছে ৪ বার, আর বাংলাদেশ জিতেছে ২ বার।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে দুবার মুখোমুখি লড়াইয়ে অবশ্য জয় পেয়েছে বাংলাদেশই (২০১৫ ক্যানবেরা ও ২০১৯ সালে সাউদাম্পটন)।