বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আমিনুলও যে পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড সফরে সুযোগ পাবেন, সেই ইঙ্গিত দিয়েছেন রঙ্গনা, ‘বিপ্লব (আমিনুল) আগামী দুই সিরিজে সুযোগ পাবে, আশা করি সে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে।’

দলে লেগ স্পিনার না থাকলেও বাকি যাঁরা ছিলেন, তাঁরা ভালোই করেছেন। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় বাংলাদেশ দলের ভরাডুবি হওয়ায় সেটি ঢাকা পড়ে যাচ্ছে। যেমন অফস্পিনার মেহেদী হাসানের পারফরম্যান্সে খুশিই মনে হলো রঙ্গনাকে।

তিনি বলেছেন, ‘আমি মেহেদীর বিশ্বকাপ পারফরম্যান্সে খুবই খুশি। সে এখন র‍্যাঙ্কিংয়ের ৯ নম্বর বোলার। সে যে ভালো করছে এটাই তার প্রমাণ। তার শেখার আগ্রহ আছে। ম্যাচের অবস্থাও ভালো পড়তে পারে।’

default-image

আগামীকাল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শেষ হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপযাত্রা। ম্যাচের ভেন্যু দুবাইয়ের উইকেটে বল বাঁক খাবে, থেমে আসবে—রঙ্গনার প্রত্যাশা এমনই, ‘পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে আমাদের ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়ানো দরকার। কাল আমাদের আরেকটি ম্যাচ আছে। আমাদের মানসিকতায় জয়ের ভাবনা থাকতে হবে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ নিয়েও ভাবতে হবে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আমরা কাল আরেকটি সুযোগ পাচ্ছি নিজেদের প্রমাণ করার। এখনো পর্যন্ত আমরা যা করেছি তা বিশ্লেষণ করতে হবে, ভাবতে হবে, আমাদের কী করা উচিত। আমি নিশ্চিত, আমরা ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারব।’

বিশ্বকাপের ব্যর্থতা নিয়ে অবশ্য বসে থাকার সুযোগও নেই বাংলাদেশ দলের। বিশ্বকাপ শেষ হতে না হতেই বাংলাদেশ সফরে আসবে পাকিস্তান দল।

এরপরের নিউজিল্যান্ড সফরও একদম পিঠাপিঠি। রঙ্গনা এ ব্যাপারে বলছিলেন, ‘এবারের বিশ্বকাপে আমরা ভালো করিনি। কিন্তু এটা খেলারই অংশ। আমাদের দেখতে হবে ব্যক্তি ও দল হিসেবে কীভাবে উন্নতি করা যায়। এটা কোচদের জন্যও চ্যালেঞ্জের। আমাদের পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য প্রস্তুত হতে হবে। সামনে তাকাতে হবে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন