default-image

শক্তির পাল্লায় প্রায় আকাশ আর পাতাল। তার ওপর প্রথম দুই ম্যাচে পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দুই প্রতাপশালী প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিয়ে উড়ছে ভারত। এমন একটা দলের সামনে আদৌ দাঁড়াতে পারবে সংযুক্ত আরব আমিরাত, নাকি উড়ে যাবে খড়কুটোর মতো? পার্থের ওয়াকায় আজ দুই দল মুখোমুখি হওয়ার আগে সবচেয়ে বেশি শোনা যাচ্ছে এই প্রশ্নটাই। কোহলি-ধাওয়ান-রাহানেদের নিয়ে ভারতের যে ব্যাটিং লাইনআপ, তাতে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল আগে ব্যাট করলে রেকর্ডের ছড়াছড়ি না হয়ে যায়!
ভেতরের ভাবনাটা যা-ই হোক, আমিরাতকে হালকাভাবে নেওয়ার কথাটা একেবারেই স্বীকার করলেন না দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোনো দলকেই হালকা করে দেখার অবকাশ নেই। আমরা আগের দুটি ম্যাচ যে মানসিকতা নিয়ে খেলেছি, এটাও সেভাবেই খেলব।’
বলছেন বটে, তবে ২২ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচের পর থেকে এ পর্যন্ত ভারতীয় ড্রেসিং রুমের যে মেজাজ সেটির সঙ্গে ঠিক মিলছে না। ছয় দিনের এই বিশ্রাম ভারত কাটাচ্ছে একেবারে ফুরফুরে মেজাজে। হোটেল রুমে বিশ্রাম, পার্থ শহরে ঘোরাঘুরি, শপিং, এর ফাঁকে মাঝেমধ্যে একটু-আধটু অনুশীলন। বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান আর সুরেশ রায়নাদের শরীরী ভাষাই বলে দিচ্ছে, ম্যাচটা নিয়ে তাঁরা মোটেই চিন্তিত নন। প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে ৭৬ ও পরের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১৩০ রানে হারানোর পর ভারতের কোয়ার্টার ফাইনালের রাস্তাটা একেবারেই মসৃণ। এ ম্যাচে তাই চাইলে ‘উইনিং কম্বিনেশন’ ভেঙে পরীক্ষা-নিরীক্ষার দিকেও যেতে পারে ধোনির দল। অবশ্য না চাইলেও একটা বদল করতেই হবে। চোটের কারণে আজ আমিরাতের বিপক্ষে খেলতে পারবেন না পেসার মোহাম্মদ সামি। তাঁর জায়গা নিতে পারেন অন্য পেসার ভুবনেশ্বর কুমার কিংবা অলরাউন্ডার স্টুয়ার্ট বিনি। শ্বশুরের আকস্মিক মৃত্যুর কারণে থাকছেন না ভারতের কোচ ডানকান ফ্লেচারও। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ভারতের পরের ম্যাচেই আবার দলের সঙ্গে যোগ দেওয়ার কথা তাঁর।
হারানোর কিছু নেই আসলে আরব আমিরাতেরও। প্রায় ১৯ বছর পর দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ খেলছে তারা। এবার প্রথম দুই ম্যাচে জিম্বাবুয়ে আর আয়ারল্যান্ডের কাছে হারলেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছে দুটি ম্যাচেই। আজ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারতের বিপক্ষে একটু প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়তে পারলে সেটাই হবে আমিরাতের বড় প্রাপ্তি। এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন