default-image

আবুধাবিতে চলছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব। গতকাল আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল আরব আমিরাত। এ ম্যাচে আয়ারল্যান্ড জিতবে—এটাই ছিল অনুমিত। কিন্তু ক্রিকেট যে বরাবরই গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা। আরব আমিরাত তা প্রমাণ করল আবারও। আইরিশরা হেরে গেছে আমিরাতের কাছে। বলা ভালো, আমিরাতের এক রোহান মুস্তফার কাছেই হেরেছে আয়ারল্যান্ড।

আগে ব্যাট করে পুরো ২০ ওভার খেললেও সংগ্রহটা একেবারেই সাদামাটা ছিল আইরিশদের। ১২৫ রানে গুটিয়ে যায় গ্যারি উইলসনের দল। তাড়া করতে নেমে ১৮ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটের জয় তুলে নেয় আরব আমিরাত। রোহান মুস্তফার ব্যাট থেকে এসেছে ১৬ বলে ৩৯ রানের ঝোড়ো ইনিংস। গোটা ম্যাচে এই মুস্তফার থেকে কোনোক্রমেই নিস্তার পায়নি আইরিশরা। ব্যাটিংয়ের সময় আইরিশদের পতন ঘটা ১০ উইকেটের ৮টিতেই কোনো না কোনো ভূমিকা ছিল রোহানের।

টি-টোয়েন্টিতে আইরিশদের বিপক্ষে এটাই প্রথম জয় নয় আরব আমিরাতের। ২০১৬ সালে এই আবুধাবিতেই দুই ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে ৫ রানে হারিয়েছিল আমিরাত। কাল দ্বিতীয় জয়ে ব্যাটে-বলে এমনকি ফিল্ডিংয়েও দুর্দান্ত ভূমিকা রাখেন রোহান। ত্রিশের বেশি রান করার পাশাপাশি বল হাতে ১৮ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। এখানেই শেষ না। দুটি রান আউটের সঙ্গে নিয়েছেন একটি ক্যাচও। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে এর আগে কোনো ক্রিকেটারই এক ম্যাচে এত বেশি ভূমিকা রাখতে পারেননি। ব্যাট হাতেও তাঁর শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। প্রথম ৯টি স্কোরিং শটের ৮টি-ই ছিল বাউন্ডারি।

>

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে কাল আয়ারল্যান্ডকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে আরব আমিরাত। এ ম্যাচে আমিরাতের রোহান মুস্তফা বলতে গেলে একাই হারিয়েছেন আইরিশদের

অথচ পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এ ক্রিকেটার গত বছর ‘ব্যাড বয়’ তকমা পেয়েছিলেন আমিরাত ক্রিকেটে। গত বছর পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত ইমার্জিং এশিয়া কাপে করাচিতে অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধার সমালোচনা করে আট সপ্তাহের জন্য জাতীয় দল থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন রোহান। এ বছরের জানুয়ারিতে রোহানসহ আমিরাতের আরও দুজন ক্রিকেটারের ক্ষমা প্রার্থনা মঞ্জুর করে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এরপর মার্চে আরব আমিরাতের দলে ফেরার সুযোগ পান রোহান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0