বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তবে শেষ বলের আগে একটি ঘটনা নিয়ে আলোচনা চলছে। বিশেষ করে বাংলাদেশের সমর্থকেরা এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হয়েছেন। শেষ বলটি করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। ওদিকে নওয়াজও ক্রিজে দাঁড়ান। মাহমুদউল্লাহ বল পিচে ফেলা মাত্রই নওয়াজ সরে দাঁড়ান। অনেকের চোখেই বলটি বৈধ ছিল, কারণ, নওয়াজ সরতে দেরি করেছেন।

যদিও নিয়ম অনুযায়ী ব্যাটিংয়ে দাঁড়িয়ে ব্যাটসম্যান নানা কারণে সরে দাঁড়াতে পারেন। সেটা হতে পারে যেকোনো অস্বস্তিবোধ, সাইটস্ক্রিন কিংবা যেহেতু রাতের ম্যাচ চোখের সামনে পোকাও উড়তে পারে। কিন্তু নওয়াজের ক্ষেত্রে তখন এমন কোনো সমস্যা দেখা যায়নি। মাহমুদউল্লাহর ডেলিভারি স্টাম্প ভেঙে দেয়।

default-image

নওয়াজ সরে যাওয়ায় তা ‘ডেড বল’ ঘোষণা করেন আম্পায়ার। আম্পায়ার আউট দিলে ম্যাচটি জিতে যেত বাংলাদেশ। কিন্তু আম্পায়ার তা করেননি এবং বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও এ নিয়ে জোরালো প্রতিবাদ করেননি। নওয়াজের সঙ্গে একবার কথা বলেছেন।

মাহমুদউল্লাহর মুখ দেখে মনে হয়েছে নওয়াজের ব্যাখ্যায় তিনি সন্তুষ্ট। আম্পায়ারের সঙ্গেও কথা বলেছেন মাহমুদউল্লাহ। আম্পায়ারের রায় মেনে নিয়ে শেষ বলটাও তিনি করেন। এদিক থেকে স্পোর্টসম্যানশিপের দারুণ এক উদাহরণ হয়ে থাকলেন তিনি।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে খুব স্বাভাবিকভাবেই তখনকার ওই ঘটনা নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। আম্পায়ারের সঙ্গে কী কথা হয়েছিল, এ প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘শুধু জিজ্ঞেস করেছিলাম। কারণ ও (নওয়াজ) একদম শেষ মুহূর্তে সরে দাঁড়িয়েছে। আমি শুধু জিজ্ঞেস করছিলাম—এটা কি বৈধ বল, শুধু এটা জিজ্ঞেস করেছিলাম।’ মাহমুদউল্লাহ আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন, ‘আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। আমরা আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাচ্ছি।’

অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ঘরের মাঠে সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। এ দুই সিরিজে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের উইকেট নিয়ে বেশ সমালোচনা হয়েছে। তবে এবারের সিরিজের উইকেট ওই দুই সিরিজের তুলনায় ভালো বলে জানালেন মাহমুদউল্লাহ, ‘উইকেট ভালো ছিল। যদি দুটি শেষ সিরিজের সঙ্গে এটির তুলনা করা হয়, তাহলে বলব, এটা বেটার উইকেট ছিল।’

ব্যাট করতে প্রস্তুত হওয়ার আগেই মাহমুদউল্লাহ বল করে ফেলায় ‘স্টান্স’ থেকে সরে দাঁড়ান নওয়াজ। মাহমুদউল্লাহও পরের বলটা করতে গিয়ে আর করেননি। এমন চাপের মুহূর্তে নওয়াজকে সম্ভবত একটু অপ্রস্তুত করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন