default-image

২০১০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে মোহাম্মদ আসিফ, মোহাম্মদ আমির আর সে সময়ে পাকিস্তান দলের অধিনায়ক সালমান বাটের দুর্নীতিতে কেঁপে উঠেছিল গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। স্পট ফিক্সিং করে জুয়াড়িদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে আসিফ, আমির ইচ্ছা করে নো বল করেছিলেন সেই টেস্টে। এ ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে হয় তিনজনকেই। ইংল্যান্ডের আইনে কারাভোগও করতে হয় কিছুদিন। পরে মোহাম্মদ আমির আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরে এলেও আসিফ আর সালমান বাটকে কখনোই পাকিস্তান দলের জন্য বিবেচনা করা হয়নি। মাত্র ২৩ টেস্ট খেলেই শেষ হয়ে গেছে আসিফের ক্যারিয়ার। এই ২৩ টেস্টে ১০৬ উইকেট পেয়েছিলেন আসিফ, ৩৮ ওয়ানডেতে ৬৮ উইকেট। কেবল স্পট ফিক্সিংই নয়, আসিফ অভিযুক্ত হয়েছিলেন মাদক সেবনের দায়েও। সেটিতেও প্রমাণ মেলে তাঁর বিরুদ্ধে।

আসিফের ব্যাপারে এত কিছুর পরও আকরাম বেশ ‘নরম’ই। ইউটিউব চ্যানেলের অনুষ্ঠানে যখন সর্বকালের সেরা বাঁহাতি ফাস্ট বোলারকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, আসিফের কাণ্ডকীর্তিগুলোকে কীভাবে দেখেন, আকরামের সোজাসাপটা উত্তর, ‘ভুল তো মানুষই করে। তরুণ বয়সে আসিফ ওসব করেছিল। ভুল করেছিল।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন