ইংল্যান্ডের সামনে কঠিন পথ

বিজ্ঞাপন
default-image
ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্ট জিততে ইংল্যান্ডের দরকার ২৭৭ রান।

পাকিস্তানের অলআউট হওয়াটা ছিল সময়ের ব্যাপার। তার আগে ইংল্যান্ডকে কতটা পেছনে ফেলতে পারে পাকিস্তানের লেজের দিকের ব্যাটসম্যানরা, সেটাই ছিল দেখার। ক্রিজে থাকা ইয়াসির শাহ ও মোহাম্মদ আব্বাসের মধ্যে ইয়াসির অপেক্ষাকৃত ভালো ব্যাটসম্যান। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সেঞ্চুরি আছে। দ্রুত কিছু রান যোগ করার দায়িত্বটা ইয়াসিরের ওপরই বর্তায়।

আজ সকালে ক্রিজে এসে সেই কাজটাই সফলভাবে করেছেন ইয়াসির। এলোপাতাড়ি ব্যাট চালিয়ে যোগ করেন গুরুত্বপূর্ণ কিছু রান। আগের দিন ২৪৪ রানের লিড বাড়িয়ে নেন ২৭৬ রানে। এ প্রতিবেদন লেখার সময় ইংল্যান্ডের প্রথম টেস্ট জিততে দরকার ছিল ২৭৭ রান।

পাকিস্তানি বোলিংয়ের সামনে কাজটা সহজ নয়। অতীত রেকর্ড তাই বলে। সর্বশেষ পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০০ বা তার বেশি রান তাড়া করে জিতেছে ভারত, ২০০৭ সালে দিল্লি টেস্টে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ২৫০ এর বেশি রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড তো আরও কম। মাত্র পাঁচবার এই ঘটনা ঘটেছে। ১৯৯৯ সালে ঐতিহাসিক হোবার্ট টেস্টে ওয়াসিম, ওয়াকার ও শোয়েবদের বিপক্ষে ৩৬৯ রান তাড়া করে অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ দুইবার করে ২৫০ এর বেশি রান তাড়া করেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে অবশ্য এর আগেও বড় রান তাড়া করে জিতেছে ইংল্যান্ড। ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ডের ২৯৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছিল তারা। এই মাঠে চতুর্থ ইনিংসে এটাই সর্বোচ্চ রান তাড়া করার রেকর্ড। ২০০৪ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২৩১ রান তাড়া করেছিল ইংলিশরা।

তবে ওল্ড ট্রাফোর্ডের উইকেটে ইংল্যান্ডের কাজটা সহজ হবে না। উইকেটে সিম মুভমেন্ট আছে, আছে স্পিনও। আর প্রতিপক্ষ দলে আছেন শাহিন শাহ আফ্রিদি, মোহাম্মদ আব্বাস, নাসিম শাহ ও ইয়াসির শাহ। আরও স্পিনার প্রয়োজন হলে আছেন শাবাদ খান। এই বোলিং লাইন আপের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ২১৯ রান করা ইংল্যান্ড চতুর্থ ইনিংসের লড়তে পারবে তো?

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন