১৯৯২ বিশ্বকাপ শুরুর আগে আলোচনাতেই ছিল না পাকিস্তান। ধুঁকতে ধুঁকতে শুরু করা দলটির তো প্রথম রাউন্ডেই বাদ পড়ার উপক্রম। ভাগ্যের সহায়তায় কোনোক্রমে টিকে যাওয়া সেই পাকিস্তানই শেষ পর্যন্ত জিতে নেয় শিরোপা! অসম্ভবকে এই সম্ভব করার মূল নায়ক ছিলেন ইমরান খান। আক্রমণাত্মক মনোভাব নিয়ে ইমরান সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন দলকে। এবারও প্রাক-টুর্নামেন্ট আলোচনায় না থাকা পাকিস্তানকে সফল হতে হলে ইমরানের ভূমিকা নিতে মিসবাহ-উল-হককে। অন্তত শোয়েব আখতারের বিশ্বাস এমনই। প্রথম পেসার হিসেবে ১০০ মাইলের গতিসীমা পেরোনো পাকিস্তানের সাবেক পেসারের ভাষায়, ‘মোহাম্মদ হাফিজকে হারিয়ে কঠিন সময় পার করছে পাকিস্তান দল। নিজে ভালো খেলে দলকে এগিয়ে নেওয়ার দায়িত্ব এখন মিসবাহর। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে ১৯৯২ সালে পাকিস্তানকে শিরোপা জিতিয়েছিলেন ইমরান। এবার সমস্যাসংকুল দলটির হয়ে মিসবাহ সেটাই করবে বলে আশা করছি।’
শুধু শোয়েব আখতারই নন, মিসবাহর পাকিস্তানের ওপর আস্থা রাখছেন সাবেক অধিনায়ক রশিদ লতিফও, ‘দলে প্রতিভার কমতি নেই। তাদের বাতিলের খাতায় ফেলা ঠিক হবে না।’ এরপর মিসবাহর করণীয়টাও বললেন লতিফ, ‘যেকোনো দলকে হারানোর ক্ষমতা যে তাদের আছে এই বিশ্বাস খেলোয়াড়দের মধ্যে জাগিয়ে তুলতে হবে মিসবাহকে।’ রয়টার্স।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন