default-image

মাঝে মাঝে ধারাভাষ্যকারদের নিজেদের কথা গিলে খেতে হয়। সেটাই আজ করতে বাধ্য করলেন স্টুয়ার্ট ব্রড। তৃতীয় দিনের প্রথম ঘণ্টার খেলা শেষ হয়েছে। দলকে বিপদ থেকে উদ্ধার করার চেষ্টাটা আচমকা থেমে গেল জ্যাসন হোল্ডারের। স্টুয়ার্ট ব্রডের একটা বল লাইন মিস করে এলবিডব্লু হলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক। ১৭৮ রানে ৭ উইকেট হারাল সফরকারীরা। তবু ধারাভাষ্যকারের চোখে আজকের দিনের সকালটা নাকি ওয়েস্ট ইন্ডিজের। আগের দিনের দুর্দান্ত ইংল্যান্ড নাকি আজ হেলাফেলা করে খেলছে!


মাঠে দর্শক নেই বলে খেলোয়াড়দের কথাবার্তাও এখন শোনা যায় টিভি পর্দায়। তাই বলে ধারাভাষ্যকারের কথা নিশ্চয় খেলোয়াড়দের কানে যায় না। কিন্তু প্রথম সেশনের বাকি সময়টা যেন ধারাভাষ্যকারকে ভুল প্রমাণ করতেই নামলেন ব্রড। একে একে তুলে নিলেন রাহকীম কর্নওয়াল, কেমার রোচ, শেন ডারউইচকে। ১৯ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯৭ রানে অলআউট ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ইনিংসে ১৭২ রানের লিড নিয়ে তৃতীয় দিনেই ম্যাচের চালকের আসনে বেশ ভালোমতো গেড়ে বসল ইংল্যান্ড। ৩১ রানে ৬ উইকেট ব্রডের।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপদ আরও বাড়িয়ে ফিল্ডিংয়ে নেমে মাত্র দুই বল পরই উঠে এসেছেন হোল্ডার। অধিনায়কের চোটের তীব্রতা এখনো বোঝা যাচ্ছে না, তবে হোল্ডারের বোলিং দক্ষতা আর নেতৃত্ব ছাড়া সিরিজ হার এড়ানো কঠিন হবে উইন্ডিজের পক্ষে।

কাল দিনটা যেভাবে শেষ হয়েছিল, তাতে অবশ্য আজ ফলোঅন এড়াতে পেরেই খুশি হতো উইন্ডিজ। ১৩৭ রানে দিন শুরু করা সফরকারীদের ভরসা হয়ে আজ সকালে দারুণ ব্যাট করেছেন হোল্ডার ও ডাউরিচ। ফলোঅন যখন এড়িয়ে যাওয়ার খুব কাছাকাছি উইন্ডিজ তখনই হঠাৎ আউট হয়ে গিয়েছিলেন হোল্ডার। ৩৮ রানে থাকা হোল্ডারকে শর্ট লেগে ক্যাচ বানিয়েছিলেন ক্রিস ওকস। কিন্তু থার্ড আম্পায়ার জানালেন, সেটা নো বল ছিল! ৩৮ রানে থাকা হোল্ডার (৪৬) ফলোঅনের শঙ্কা কাটানোর ক্ষণিক পরই ফিরেছেন। অন্য প্রান্তে থাকা ডাউরিচ অন্য কোনো সতীর্থকে লম্বা সময়ের জন্য পেলেন না।

শেষ পর্যন্ত চাপ কাটাতে বল আকাশে তুলে ব্রডের ষষ্ঠ শিকার হিসেবে বিদায় নিয়েছেন ডাউরিচ (৩৭)। মধ্যাহ্নবিরতির আগে ব্যাট করতে নেমে ইংলিশ দুই ওপেনার লিড আরও ১০ রান বাড়িয়ে নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন