ডানেডিনে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলবেন না উইলিয়ামসন–টেলরের কেউই।
ডানেডিনে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলবেন না উইলিয়ামসন–টেলরের কেউই।ছবি: এএফপি

প্রতিপক্ষ দলটির বিপক্ষে ঘরের মাঠে তারা কখনো হারেনি। এই আত্মবিশ্বাস নিয়েও ঘাটতিটা ভাবাচ্ছে নিউজিল্যান্ডকে। দলের টপ অর্ডারে মোট ৩৮৩ ম্যাচ ও ১৪ হাজার ৭৪৭ রান তোলার অভিজ্ঞতালব্ধ দুজন পরীক্ষিত সেনানি নেই। মনের মধ্যে তো একটু হলেও কু ডাক দেয়!

এই কু ডাকটা ঘা দিচ্ছে নিউজিল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমে। নিয়মিত অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও রস টেলরের অনুপস্থিতিকে হালকা চোখে দেখছে না তারা। এনজেড হেরাল্ডের মতে, নিউজিল্যান্ড এমন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যে যায়নি তা নয়, কিন্তু সে সময়টা মনে করা কঠিন।

রাত পোহালে ভোরে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এ ম্যাচে খেলবেন না নিউজিল্যান্ডের দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার উইলিয়ামসন ও টেলর। চোটের কারণে তাঁদের পাচ্ছে না নিউজিল্যান্ড। টেলরকে অবশ্য শুধু প্রথম ওয়ানডেতেই পাচ্ছে না স্বাগতিকরা। ব্যাটিং অর্ডারে বিশ্বমানের এ দুজনকে ছাড়া নিউজিল্যান্ড সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছে ২০১৪ সালের অক্টোবরে। সেটি ছিল হ্যামিল্টনে তৃতীয় ওয়ানডে—বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়েছিল।

default-image
বিজ্ঞাপন

ডিন ব্রাউনলি, কোরি অ্যান্ডারসন, লুক রনকি ও ম্যাককুলাম ভাইয়েরা ছিলেন সে ম্যাচে। নিউজিল্যান্ডের বর্তমান দলে তাকালে সেই দলটাকে মনে হয় অন্য কোনো যুগের। সে হিসাবে কাল বাংলাদেশ সময় ভোরে ইউনিভার্সিটি ওভালে নিউজিল্যান্ড তো নতুন যুগে পা রাখতে যাচ্ছে! কথাটা এভাবে বলাই যায়। কেননা, উইলিয়ামসন ও টেলরের বদলে কাল নিউজিল্যান্ড ওয়ানডে দলে অভিষিক্ত হতে পারেন ডেভন কনওয়ে ও উইল ইয়ং।

টেস্ট আঙিনায় নিজের সামর্থ্যের ছিটেফোঁটা দেখিয়েছেন ইয়ং। আর কনওয়ে মন কেড়েছেন টি–টোয়েন্টিতে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজে তাঁর ম্যাচ জেতানো ৯৯ রানের ইনিংসটি মনে রাখবেন অনেকে। এ দুজনকে নিয়েই আশাবাদী শততম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় থাকা নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক টম লাথাম। ওয়ানডে অভিষেক ঘটতে পারে আরও একজনের—অলরাউন্ডার ড্যারিল মিচেল। বিষয়টি বিবেচনায় নিলে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে তিনজনকে অভিষিক্ত করতে পারে নিউজিল্যান্ড। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের জায়গায় দলে আসতে পারেন মিচেল।

২৯ বছর বয়সী এ অলরাউন্ডার টেস্টে নিজের সামর্থ্য দেখিয়েছেন। ব্যাটিংয়ে নজর কাড়লেও তাঁর মিডিয়াম পেস বোলিংয়ের কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ দূর হয়নি নিউজিল্যান্ড ম্যানেজমেন্টের, জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনজেড হেরাল্ড। অধিনায়ক লাথাম মনে করেন, ‘এটা তাদের জন্য ভালো সুযোগ। এবারের দলটা একটু আলাদা। কয়েকজন নতুন মুখ আছে। আর এ বছর আমরা লাল ও সাদা বলে ভালোও খেলেছি।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন