বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

২০০৬ সালে সেমান আইল্যান্ডসের বিপক্ষে ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর হয়ে ক্যারিয়ারের প্রথম স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন পোলার্ড। সে ম্যাচে বোলিংয়ে নিয়েছিলেন ১ উইকেট, ব্যাটিং করেননি। পোলার্ড এরপর পেরিয়ে এসেছেন দীর্ঘ পথ। তাঁর মতে, বুদ্ধি খাটিয়ে বোলিং করেই এত দূর আসতে পেরেছেন তিনি, ‘আমার পেস নেই, স্পিন নেই, সুইং নেই, তবে আমার একটুখানি বুদ্ধি আছে!’

শুরুর দিকে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট নিয়ে তাঁর আগ্রহের কথাও জানিয়েছেন পোলার্ড, ‘২০০০ সালের পরের দিকে এ সংস্করণের ক্রিকেট নিয়ে তো কারও তেমন প্রত্যাশা ছিল না। (তবে) এটাতেই আমি ভালো করতে পেরেছি।’

২০১০ সালে প্রথমবার আইপিএলে খেলেন পোলার্ড। এরপর থেকে মুম্বাইয়ের হয়েই খেলে এসেছেন তিনি। বিশ্বের প্রায় সব ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেট লিগেই খেলেছেন এ অলরাউন্ডার। তবে সবকিছুর ওপরে দলের হয়ে পারফর্ম করাটাই গুরুত্বপূর্ণ তাঁর কাছে, ‘১০ হাজারের ওপরে রান, ৩০০ উইকেট—আমার জন্য (বড়) অর্জনই তো! অন্যরা কে কী ভাবে, তাতে কিছু যায়–আসে না। আমি শুধু ক্রিকেট খেলতে পারি, সেটাতেই ভালো করতে চাই সব সময়।’

default-image

তবে এসব রেকর্ডের চেয়েও তাঁর কাছে বড় ব্যাপার আছে আরেকটা, ‘আমার কাছে পারফর্ম করাটাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার। আমার ক্যারিয়ারে উত্থান-পতন ছিল অনেক। তবে আমি কৃতজ্ঞ, যা কিছু হয়েছে সেসবের জন্য। দলের জন্যই পারফর্ম করে যেতে চাই। আমার বেশ কয়েকজন ভালো বন্ধুর টি-টোয়েন্টিতে অনেক রেকর্ড আছে। আশা করি, তারা আরও রেকর্ড গড়বে। ব্যক্তিগত রেকর্ড অবশ্যই একটা ব্যাপার, তবে আমার কাছে ভালো ক্রিকেটার, ভালো মানুষ হওয়া তার চেয়েও বড় ব্যাপার।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন