বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আউট অব বক্স ভাবনার কথা বলছিলাম। আজ লিটনকে হয়তো বিশ্রাম দেওয়া হবে। কিন্তু তাঁর বদলে কে খেলবে? সৌম্য সরকার? আমি চাই মোহাম্মদ নাঈমের সঙ্গে ওপেন করুক আফিফ হোসেন।

আমি বেশ কয়েকটা লেখায় আফিফকে ওপেনিংয়ে খেলানোর কথা বলেছি, সে নিচের দিকের ব্যাটসম্যান নয়। ওর ইনিংস সাজাতে একটু সময় লাগে, কিন্তু দাঁড়িয়ে গেলে খুবই বিপজ্জনক। কোচ ডমিঙ্গো আফিফকে ওপেনিংয়ে পাঠিয়ে দিয়ে দেখুন না!

default-image

আমাদের দল আসলে যে অবস্থায় আছে, এমন কিছুই ভাবতে হবে। শামীম হোসেনকে খেলানো উচিত। সে নিচের দিকে হার্ড হিটিং করতে পারে, ওকে দলে নিলে একজন অফ ব্রেক বোলারও পাব আমরা। সব মিলিয়ে শামীমকে আজই খেলানো উচিত।

ক্যারিবীয় দলের টপ অর্ডারে চারজন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান আছেন—এভিন লুইস, ক্রিস গেইল, নিকোলাস পুরান, শিমরন হেটমায়ার। প্রত্যেকেই ভয়ংকর। তাঁদের দু–একজনই যেকোনো প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

শেখ মেহেদীর সঙ্গে শামীমকে খেলাতে বলছি এই চারজন বাঁহাতি বলেই। মাহমুদউল্লাহ নিজেও অফ স্পিনার, আফিফও অফ ব্রেক বোলিং করে। নাসুম আহমেদকে কাল বসানো যেতে পারে। সাকিব আল হাসান বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে একাই থাকুক।

default-image

আমি আজ বাংলাদেশ দলে অভিজ্ঞ রুবেল হোসেনকেও দেখতে চাই। তিন পেসার নিয়ে খেলুক বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহর হাতে ছয়টি বোলিং অপশন থাকুক। ব্যাটিং অর্ডারটা আমি দেখতে চাই ঠিক এভাবে—নাঈম, আফিফ, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, নুরুল, শামীম, মেহেদী, মোস্তাফিজ, রুবেল, শরীফুল।

টসে জিতে বোলিং বেছে নিক বাংলাদেশ। এটার পেছনে একটা যুক্তি আছে। আগে ব্যাটিং করে আমরা খুব ভালো করলে করব ১৮০।

আমরা বরং ১৮০ রান তাড়া করি, জিতলে জিতব, হারলে হারব। সেদিন শ্রীলঙ্কা যেমন ১৭১ রান তাড়া করে ফেলল, ওয়েস্ট ইন্ডিজের তো রান তাড়া করার জন্য আরও ভয়ংকর ব্যাটসম্যানরা আছেন।

মনেপ্রাণে চাই, বাংলাদেশ আজ জিতুক।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন