মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আজ
তাসকিনের ফিল্ডিং অনুশীলন
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আজ তাসকিনের ফিল্ডিং অনুশীলনপ্রথম আলো

২০১৮ সালের মার্চে নিদাহাস ট্রফির পর আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হয়নি তাসকিন আহমেদের। গত বছর বিশ্বকাপ দলে না থাকতে পেরে কেঁদেছিলেন এই পেসার। পরে আয়ারল্যান্ড সফরে সুযোগ পেলেও ম্যাচ খেলা হয়নি। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে একটা যেন দূরত্বই তৈরি হয়ে গিয়েছিল তাসকিনের। করোনাবিরতির পর ২৫ বছর বয়সী পেসার চেষ্টা করছেন দূরত্বটা ঘোচাতে। তাসকিন আশাবাদী, দ্রুতই খুঁজে পাবেন পূর্ণ ছন্দ।

আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফর সামনে রেখে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) যে ২৭ ক্রিকেটারকে জৈব সুরক্ষা বলয়ে রেখেছে, সেখানে তাসকিনও আছেন। অনেক দিন পর টিম হোটেলে থাকা, জাতীয় দলের সতীর্থদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি করা, পুরো দমে অনুশীলনের অভিজ্ঞতা নিয়ে আজ বলছিলেন ৫ টেস্ট, ৩২ ওয়ানডে ও ১৯ টি-টোয়েন্টি খেলা এই পেসার, ‘অনেক দিন পর সবাই একত্রিত হয়ে অনুশীলন করতে পেরে ভালো লাগছে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

শ্রীলঙ্কা সিরিজে টিম ম্যানেজমেন্টের পরিকল্পনায় ভালোভাবেই আছেন তাসকিন। শেষ পর্যন্ত একাদশে ঠাঁই মিলবে কিনা, সেটি অবশ্য এখনই নিশ্চিত করে বলার উপায় নেই। তাসকিনও দলে সুযোগ পাওয়ার চেয়ে বেশি মনোযোগী নিজের কাজ নিয়ে। প্রস্তুতি কতটা এগিয়েছে, সেটি নিয়ে বিস্তারিতই বললেন তাসকিন, ‘আগের চেয়ে ভালো ছন্দে এসেছি। গতি, সিম পজিশন এসব নিয়ে কাজ করছি কোচদের সঙ্গে। ফিট থাকলে সামনে আরও উন্নতি হবে। যদি সুস্থ থাকি অ্যাকুরেসি, গতি সিম পজিশনে আরও ভালো ছন্দ পাব।’

এখানেই শেষ নয়, সামনে আরও ভালো কিছু হবে আশা করছি।
তাসকিন আহমেদ
বিজ্ঞাপন
default-image

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ছয় বছর আগে। এই সময়ে উত্থান-পতন কম দেখেননি তাসকিন। চোট অনেক ভুগিয়েছে তাঁকে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টিকে থাকতে হলে কতটা উন্নতি আনতে হবে পারফরম্যান্স আর ফিটনেসে, সেটিও এখন তাঁর অজানা নয়। চোট প্রবণ তাসকিন জানালেন, গত ছয় মাস অনেক উন্নতি হয়েছে তাঁর ফিটনেসে। তবে উন্নতি চান আরও, ‘উন্নতির শেষ নেই। বিশ্বমানের হতে হলে, আরও ধারাবাহিক হতে হলে সব সময়ই কঠোর পরিশ্রম করে যেতে হবে। এখানেই শেষ নয়, সামনে আরও ভালো কিছু হবে আশা করছি। আমার চেষ্টা অব্যাহত রাখব। ভবিষ্যতে যেন আরও ভালো করতে পারি সেই চেষ্টা করব।’

তাসকিনের উন্নতি কতটা হলো, সুযোগ পেলে সেটি প্রমাণের ভালো মঞ্চ হতে পারে আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরই।

মন্তব্য পড়ুন 0