বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ নিজের ঘরের মাঠ সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রংপুর বিভাগের বিপক্ষে কাঙ্ক্ষিত ৫০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন এনামুল।

আজ প্রথম আলোকে তিনি বলছিলেন, ‘এই মৌসুমের শুরু থেকেই সবাই “৫০০”, “৫০০” করছিল। গতকাল রাতে একটু দুশ্চিন্তায় ছিলাম বোলিং করার সুযোগ পাওয়া নিয়ে। আলহামদুলিল্লাহ যখন নেমেছি, তখন দ্বিতীয় ওভারেই উইকেটটা পেয়ে যাই।’

default-image

এরপর এনামুল ও তাঁর সতীর্থদের উচ্ছ্বাস আর দেখে কে। পুরো সিলেট বিভাগের ড্রেসিংরুমই যে মাহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষায় ছিল, সেটি বোঝা গেল এনামুলকে ঘিরে তাদের উদ্‌যাপনে। বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয়ের নায়ক এনামুল সর্বশেষ টেস্ট খেলেছেন সেই ২০১৩ সালে।

কিন্তু ঘরোয়া ক্রিকেটে সিলেট বিভাগের হয়ে লাল বলের খেলা চালিয়ে যাচ্ছেন নিয়মিতই। এনামুলের কাছে এই অর্জন লাল বলের প্রতি তাঁর নিবেদন ও ভালোবাসার প্রতিফলন।

এনামুল আরও বলেন, ‘গত কয়েক বছর প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলাটা শুধু টাকার জন্য খেলছি না। লাল বল বা প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের প্রতি আমার যে ত্যাগ, ভালোবাসা, এটাই তার বহিঃপ্রকাশ। অনেক দিন জাতীয় দলে না খেললেও ভালোবাসা থেকে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট চালিয়ে যাচ্ছি। সিলেটের পক্ষে মাঠে নামাটা আমার জন্য অনেক সম্মানের। সিলেট হারলে খারাপ লাগে। জিতলে ভালো লাগে। এসবের বহিঃপ্রকাশ এই ৫০০ উইকেট। এর পেছনে আমার সব অধিনায়ক, সব সতীর্থদের অবদান আছে।’

এবার ৩৪ বছর বয়সী এনামুলের চোখ রাজ্জাকের সর্বোচ্চ ৬৩৪ উইকেটের চূড়ায়। তবে সেটা নাকি নির্ভর করবে এনামুলের খেলা চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছার ওপর, ‘শরীর ও ইচ্ছার ওপর ভবিষ্যতের অনেক কিছুই নির্ভরশীল। যদি ইচ্ছা থাকে খেলা চালিয়ে যাওয়ার, তাহলে কোনো অর্জনই দূরের না। তবে আমারও ইচ্ছা আছে শীর্ষে ওঠার।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন