বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আইরিশরা প্রথমে ব্যাটিং করে ৫ উইকেটে তোলে ২৯০ রান। ১১৭ বলে ইনিংস–সর্বোচ্চ ১০২ রান করেছেন দলটির ওপেনার অ্যান্ডি বলবার্নি। আইরিশ অধিনায়কের সপ্তম ওয়ানডে সেঞ্চুরিটি সাজানো ১০ চার ও ২ ছক্কায়।

default-image

পল স্টার্লিং (২৭), অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন (৩০) ও হ্যারি টেক্টরকে নিয়ে তিনটি ৬০ ছাড়ানো জুটি গড়া বলবার্নি আউট হয়েছেন ৪২তম ওভারে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে। আয়ারল্যান্ডের রান তখন ১৯৪।

অধিনায়কের গড়ে দেওয়া ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে এরপর তাণ্ডব চালিয়েছেন টেক্টর ও জর্জ ডকরেল। চতুর্থ উইকেটে ৪৬ বলে ৯০ রান যোগ করেন দুজন। ৬৮ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৭৯ রান করেন টেক্টর। ২৬ বলে এই রানের ৪৮-ই টেক্টর করেছেন বলবার্নি ফেরার পর। ১৩ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে টেক্টরের এটিই সর্বোচ্চ ইনিংস।

অন্য পাশে ডকরেল করেছেন ২৩ বলে ৪৫ রান। তাঁর ইনিংসে ৫ চারটি, ছক্কা দুটি। আইরিশ ইনিংসের শেষ বলে আউট হয়েছেন ডকরেল।

রান তাড়ায় ৪৮.৩ ওভারে ২৪৭ রানে অলআউট দক্ষিণ আফ্রিকা। ওপেনার ইয়ানেমান ম্যালান ও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রেসি ফন ডার ডুসেন ছাড়া বলার মতো রান পাননি অন্য কোনো প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। ৯৬ বলে ৭ চার ও ৪ ছক্কায় ৮৪ রান করেছেন ম্যালান। ৭০ বলে ৪৯ রান ফন ডার ডুসেনের।

শুরুটা অবশ্য খারাপ ছিল না দক্ষিণ আফ্রিকার। ৩৩তম ওভারেই ২ উইকেটে ১৫৯ রান তুলে ফেলে দলটি। ম্যালান দ্বিতীয় সেঞ্চুরিটাকে পায়ে দলে ফিরেছেন ডিপ মিড উইকেটে সহজ ক্যাচ তুলে। ১ রান ও ৭ বল পরেই ম্যালানের পিছু পিছু ফিরে যান ফন ডার ডুসেন। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে প্রোটিয়ারা। আয়ারল্যান্ডের ছয় বোলার ভাগাভাগি করে নিয়েছেন উইকেটগুলো। ৩৪ রানে ২ উইকেট নিয়ে সেরা বোলিংটা অফ স্পিনার অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইনের।

শুক্রবার সিরিজের শেষ ম্যাচ ম্যালাহাইডেই।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন