এবার হয়তো সেই দিনও ফুরোল। সব ধরনের ক্রিকেট থেকে ‘পাকাপাকিভাবে’ অবসরের পরিকল্পনা করছেন কিংবদন্তি এই অলরাউন্ডার। সামনের পিএসএলই হতে পারে সক্রিয় ক্রিকেটার হিসেবে তাঁর শেষ টুর্নামেন্ট। ২০২২ সালের পিএসএলে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে খেলে অবসর নিতে চান আফ্রিদি, ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ইএসপিএন জানিয়েছে এমনটাই।

default-image

আগামী পিএসএল খেলেই পুরোপুরি ব্যাট-গ্লাভস-প্যাড তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন আফ্রিদি। করাচি কিংস, পেশোয়ার জালমি ও মুলতান সুলতানসের হয়ে আইপিএল খেলা এই তারকা নিজের শেষ পিএসএলে খেলতে চান আরেক ফ্র্যাঞ্চাইজি কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে।

কোয়েটার হয়ে এক মৌসুম খেলেই একেবারে বিদায় বলে দিতে চান ক্রিকেটকে, ‘হয়তো আগামী পিএসএলটাই আমার ক্যারিয়ারের শেষ টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে। আমি কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে আমার শেষ মৌসুমটা খেলতে চাই, যদি মুলতান সুলতানস আমাকে ছাড়ে আরকি! যদি নাদিম ওমর আর কোয়েটার অন্যান্য মালিক আমাকে চায়, তাহলে আমি কোয়েটার হয়ে খেলতে রাজি আছি।’

এখন মুলতান সুলতানসের হয়ে খেলা এই অলরাউন্ডার পিএসএল খেলা শুরু করেছিলেন পেশোয়ার জালমির হয়েই। প্রথমবার ফ্র্যাঞ্চাইজিটির আইকন খেলোয়াড় ও অধিনায়ক হয়ে দলকে শিরোপা জেতাতে পারেননি।

default-image

পরেরবার দলটার সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে মাঠের নেতৃত্বের দায়িত্ব দেন ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান অলরাউন্ডার ড্যারেন স্যামিকে। সেবার স্যামির নেতৃত্বে শিরোপা জেতে পেশোয়ার। খেলোয়াড় হয়ে শিরোপা জিতে আফ্রিদি পাড়ি জমান করাচি কিংসে। সেখানে দুই মৌসুম খেলে যোগ দেন মুলতান সুলতানসে। দলটা এবার শিরোপা জিতলেও চোটের কারণে খেলতে পারেননি আফ্রিদি। এবার মুলতান থেকেই কোয়েটায় যেতে চাচ্ছেন এই অলরাউন্ডার।

পিএসএলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার মানা হয় আফ্রিদিকে। ছয় মৌসুমে মোট ৫০ ম্যাচ খেলে ৪৬৫ রান তোলার পাশাপাশি ৪৪ উইকেটও নিয়েছেন এই লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার। লুক রনকি আর কাইরন পোলার্ডের পর তাঁর স্ট্রাইক রেটই পিএসএলে সর্বোচ্চ—১৫৩.৪৬।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন