default-image

জব্বর এক বিজ্ঞাপন তৈরি করেছে ভারতের খেলার চ্যানেল স্টার স্পোর্টস। এক পাকিস্তানি দর্শক বুকে বড় আশা আর হাতে পটকা-বাজি নিয়ে বিশ্বকাপে পাক-ভারত লড়াই দেখতে বসেন টিভি সেটের সামনে সেই ১৯৯২ সাল থেকে। সময় বদলায়, টিভির মডেল বদলায়, ঘরের পরিবেশ বদলায়, বয়সের টানে বদলায় চেহারাও। কিন্তু বদলায় না খেলার ফলটা! ১৯৯২ থেকে ২০১১—বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে হারাটাই যেন পাকিস্তানের ‘অমোঘ নিয়তি’!
সে নিয়তির বদল কি এবার হবে? হ্যাঁ, এবার বদলের সম্ভাবনাই দেখছেন পাকিস্তান কিংবদন্তি জহির আব্বাস। বিশ্বকাপের মঞ্চে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি হয়েছে পাঁচবার। প্রতিবারই হারের লজ্জা নিয়ে মাঠ ছেড়েছে পাকিস্তান। আর পাঁচ লড়াইয়ে প্রতিবারই ভারতের পরিচিতমুখ ছিলেন শচীন টেন্ডুলকার। সেই টেন্ডুলকারকে ছাড়া বিশ্বকাপে এবার প্রথম পাকিস্তানের মুখোমুখি ভারত।
তা ছাড়া দলটি গত তিন মাসে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে জয়ের দেখা পায়নি একটি বারের জন্যও। আত্মবিশ্বাসের দিক থেকে একটু পিছিয়ে থাকা ধোনির দলকে তাই এবার হারানোর দারুণ এক সুযোগ দেখছেন জহির, ‘বিশ্বকাপের কোনো ম্যাচেই ভারতকে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। তবে পরাজয়ের এই দুষ্টচক্র দূর করার এক সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে এবার। অস্ট্রেলিয়ায় (সাম্প্রতিক সময়ে) ভারতের খেলাগুলো দেখেছি। স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে তাদের সর্বশেষ প্রস্তুতি ম্যাচটিও দেখিছি। দেখে মনে হয়েছে পাকিস্তান এবার ভারতকে হারাতে পারে। আশা করি, পাকিস্তান দ্রুতই চোট-বাধা কাটিয়ে নিজেদের ছন্দে ফিরতে পারবে।’
পাকিস্তান যদি সত্যি ছন্দে থাকতে পারে, তবে ১৫ ফেব্রুয়ারি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর অগ্নিগর্ভে রুপ নেওয়া ম্যাচের পর পাকিস্তানি দর্শকদের দুই যুগের অপেক্ষা ফুরোতে পারে, তৈরি হতে পারে ‘পটকা ফোটানের’ আরাধ্য উপলক্ষ! তথ্যসূত্র: এনডিটিভি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন