বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলের ব্যাটসম্যানরা দ্রুত রান তুলতে ব্যর্থ। টি–টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই ‘মারতে পারা’ যে কত জরুরি, সেটি না বললেও চলছে। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং ছিল চোখের জন্যই পীড়াদায়ক। মারতে পারেন না, উইকেটে টিকতেও পারেন না। পাওয়ারপ্লের ব্যাপারটি মাথায়ই থাকে না তাঁদের। মাহমুদউল্লাহ জানেন এভাবে টি–টোয়েন্টি ক্রিকেট চলে না, ‘টি–টোয়েন্টি ক্রিকেটে পাওয়ারপ্লেতে আপনাকে ভালো করতেই হবে। যেখানে আমাদের দলে, যাদের মারকুটে ব্যাটসম্যান বলে, এমন কেউ নেই। পাওয়ারপ্লেতে রান তুলেই সেটি পরের ওভারগুলোতে টেনে নিতে নিতে হয়। আমরা এসবের কিছুই করতে পারিনি।’

default-image

বিশ্বকাপের শুরুটাই হয়েছিল স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে হার দিয়ে। ওমান আর পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে সুপার টুয়েলভে এসে শ্রীলঙ্কা আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি ম্যাচে জয় পেলেও পেতে পারত বাংলাদেশ। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে হারটা তো ছিল হৃদয় ভেঙে দেওয়ার মতোই। তবে এর বাইরে খুবই বাজে একটা বিশ্বকাপ গেল বাংলাদেশের। ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা আর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে রীতিমতো উড়ে গেছে দল। এর সঙ্গে যোগ হয়েছিল সংবাদ সম্মেলনে এসে অপ্রয়োজনীয় কথাবার্তা আর নানা ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত বিতর্কের ঝাপটা।

বিশ্বকাপটা শেষ করে মাহমুদউল্লাহরা এখন হাঁপ ছেড়ে বাঁচবেন, ক্রিকেটপ্রেমীদেরও বাঁচাবেন!

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন