বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ব্রিসবেনে দুই অভিজ্ঞ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড ও জেমস অ্যান্ডারসনকে ছাড়াই নেমেছিল ইংল্যান্ড। তবে একমাত্র স্পিনার হিসেবে খেলা বাঁহাতি জ্যাক লিচের ওপর চড়াও হয়েছিলেন অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যানরা। অ্যাডিলেডে ব্রড-অ্যান্ডারসন ফিরেছেন, তাঁদের জায়গা করে দিতে বাদ পড়েছেন ফাস্ট বোলার মার্ক উড ও স্পিনার লিচ।

অ্যাডিলেড ওভালে অস্ট্রেলিয়ার ইতিহাসের সবচেয়ে সফল অফ স্পিনার নাথান লায়ন নিয়মিত সাফল্য পেলেও সাম্প্রতিক সময়ে বাইরের কোনো স্পিনার সেভাবে সুবিধা করতে পারেননি। ২০১০ সালে গ্রায়েম সোয়ান ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। এর পর থেকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একমাত্র ভারতের রবিচন্দ্রন অশ্বিন ছাড়া এ মাঠে ইনিংসে ২টির বেশি উইকেট পাননি আর কোনো স্পিনার।

default-image

তবে অ্যাশেজে এবার অ্যাডিলেড টেস্টে দ্বিতীয় দিন থেকেই উইকেটে বল ঘুরছিল। শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংসে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন রুট-ম্যালান দুজনই। নাসের হুসেইন তাই প্রশ্ন তুলেছেন, এখানেও লিচকে খেলানো না হলে আর কোথায় খেলানো হবে!

ডেইলি মেইলে নিজের কলামে হুসেইন লিখেছেন, ‘ইংল্যান্ডে ডিউক বলে পেসাররা সারা দিনই মুভমেন্ট পায়। সেখানে লিচকে বাদ দেওয়া এক কথা। কিন্তু অ্যাডিলেডে ৩৮ ডিগ্রি তাপমাত্রায়, শুষ্ক পিচে তো এটা সম্পূর্ণ ভিন্ন ব্যাপার। ওলি রবিনসনকে অফ স্পিন করতে দেখাটাই সব বলে দেয়।’

default-image

প্রথম ইনিংসে ১৫০ ওভারের মধ্যে রুট করেছেন ২০ ওভার। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ার ৮৪ ওভারের মধ্যে ২৮ ওভারই করেছেন লায়ন। হুসেইন তাই দুই দলের মানসিকতাতেই পার্থক্যটা দেখতে পাচ্ছেন। লিচকে অ্যাডিলেডে না খেলানোর পেছনে সম্ভাব্য কারণ হিসেবে তিনি বলেছেন, ‘নিশ্চিতভাবেই ইংল্যান্ড লিচকে অমন মানসম্পন্ন মনে করে না। আর রুট এমন ভালো বোলিং করতে পারে, সেটাও বিশ্বাস করে না। বেন স্টোকসকে চতুর্থ পেসার হিসেবে খেলানোর ক্ষেত্রেও দুশ্চিন্তা আছে তাদের। এতে করে তার খাটুনি বেশ হয়ে যেতে পারে, ভার বেশি হতে পারে।’

তবে ইংল্যান্ডের এখনকার ঘরোয়া ক্রিকেট কাঠামো স্পিনার গড়ে তোলার ক্ষেত্রে উপযোগী নয়, হুসেইন লিখেছেন সেটাও, ‘ঘরোয়া ক্রিকেট এ ক্ষেত্রে সহায়তা করছে না। আপনি এপ্রিল-মে বা সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে (ইংল্যান্ডে গ্রীষ্মের শুরুতে বা শেষে) প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেললে স্পিনার তৈরি করতে পারবেন না। যে সময়ে এবং যে উইকেটে খেলি, সেগুলো স্পিনের জন্য মোটেও ভালো নয়। অনেক সবুজ পিচ, যেখানে পেসাররাই সব কাজ করে দেয়।’

লিচ ছাড়াও ইংল্যান্ড স্কোয়াডে স্পিনার হিসেবে আছেন ডম বেস। তবে বেসও খরুচে বোলিংয়ের কারণে আলোচনায় এসেছিলেন এর আগে। এ ছাড়া ইংল্যান্ড লায়নসের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া সফরে আছেন দুজন লেগ স্পিনার ম্যাট পারকিনসন ও মেসন ক্রেন। তবে অস্ট্রেলিয়া ‘এ’ দলের বিপক্ষে এখনো খেলেননি তাঁরা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন