default-image

‘সোনার হাঁস’ বলে কিছু হয় না, অন্তত স্বর্ণকারেরা এমন কিছু না বানালে। কিন্তু ক্রিকেটে তা আছে, গোল্ডেন ডাক নামে প্রচলিত এবং কেউ তা এড়িয়ে যেতে পারলে বাঁচেন!

টেস্ট অভিষেক হলে তো কথাই নেই। প্রথম বলে আউট হতে কে চায়, সেটিও আবার ম্যাচের প্রথম বলে! আবদুল মালিকও চাননি। চোখে অপার স্বপ্ন নিয়ে আজ আবুধাবি টেস্টে আফগানিস্তানের হয়ে টেস্টে অভিষিক্ত হন তিনি। কিন্তু জিম্বাবুয়ে পেসার ব্লেসিং মুজারাবানির করা ম্যাচের প্রথম বলেই সেই স্বপ্নের শুরুটা হলো দুঃস্বপ্ন দেখে—আউট! গোল্ডেন ডাক!

একে তো টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচ, আর প্রথম বল—সম্ভবত অতিরিক্ত সাবধান হয়ে ঠেকাতে গিয়েই বলটা স্টাম্পে টেনে আনেন আফগান ওপেনার। তাঁর দল আফগানিস্তানও ভালো করতে পারেনি।

মুজারাবানির ৪ উইকেট ও ভিক্টর নওয়াচির ৩ উইকেটে প্রথম ইনিংসে ১৩১ রানে গুটিয়ে যায় আফগানিস্তান। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে জিম্বাবুয়েও স্বস্তিতে ছিল না। ৫ উইকেটে ১৩৩ রানে প্রথম দিনের খেলা শেষ করেছে জিম্বাবুয়ে।

বিজ্ঞাপন

টেস্টে কুলীন সারির দল না হওয়ায় আবুধাবির এ টেস্ট নিয়ে তেমন কারও আগ্রহ নেই। কিন্তু ঘটনা তো আর বসে থাকে না, আর খেলাটাও যেহেতু ক্রিকেটের সেরা সংস্করণ—মালিক গোল্ডেন ডাক মেরে তাই অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে সবার নজর কেড়েছেন।

সেটি অবশ্যই পরিসংখ্যানগত দিক থেকে। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে অভিষেকে ম্যাচের প্রথম বলেই আউট হওয়া তৃতীয় ক্রিকেটার মালিক। সর্বশেষ এ নজির দেখা গেছে ২০ বছর আগে—১৯৯২ সালে কিংস্টন টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লিওন গ্যারিক।

প্রথম এ নজির দেখা গেছে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ওপেনার ও ফুটবলার জিমি কুকের সৌজন্যে। ১৯৯২ সালে ডারবান টেস্টে ভারতের সাবেক পেসার কপিল দেবের করা প্রথম বলে ক্যাচ দিয়েছিলেন কুক।

default-image

ওয়ানডে অভিষেকে ম্যাচের প্রথম বলে ডাক মেরেছেন দুজন ক্রিকেটার, তাঁদের একজনের সঙ্গে আবার জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের এক বোলারের নাম। ওয়ানডেতে সর্বশেষ এমন কিছু দেখা গেছে বেশি দিন হয়নি।

গত বছর পার্লে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডেতে গোল্ডেন ডাক মেরে আউট হন ইয়ানেমান ম্যালান। ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রথম এই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছিল কাইরন পাওয়েলকে—আর তাঁর সঙ্গে জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের সাবেক পেসার মাহবুবুল আলমের নাম।

২০০৯ সালে সেন্ট কিটসে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ওয়ানডে অভিষেক ঘটেছিল পাওয়েলের। ভালো লেংথে বল ফেলে এলবিডব্লুর শিকার বানিয়ে তাঁর অভিষেক পণ্ড করেছিলেন মাহবুবুল।

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতেও অভিষেকে ম্যাচের প্রথম বলে আউট হওয়ার নজির আছে। তবে যে দুটি দলের ম্যাচে এমন ঘটনা ঘটেছিল, তাদের নাম শুনলে পাল্টা প্রশ্ন উঠতে পারে—ওরা আবার ক্রিকেট খেলে নাকি?

২০১৯ সালে আইবেরিয়া কাপে পর্তুগাল-স্পেন টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অভিষেকেই ম্যাচের প্রথম বলে পর্তুগালের ভারতীয় বংশোদ্ভূত ওপেনার তারিক আজিজ আউট হন।

ম্যাচের প্রথম বলে আউট হওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের দুই ব্যাটসম্যান বেশ ওপরের দিকে। সাবেক ওপেনার হান্নান সরকার তো পরিসংখ্যানের এক পাতায় বসে আছেন সুনীল গাভাস্কারের পাশে।

default-image

এই দুজন ছাড়া সেখানে আর কেউ নেই। ক্রিকেটের তিন সংস্করণ মিলিয়ে ম্যাচের প্রথম বলে চারবার করে আউট হয়েছেন গাভাস্কার ও হান্নান। মিল আরও আছে—দুজনেই তিনবার এভাবে আউট হয়েছেন টেস্টে, বাকি একবার ওয়ানডেতে। তবে টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক পেসার পেদ্রো কলিন্সকে শুধু এভাবে উইকেট দিয়েছেন হান্নান।

তিন সংস্করণ মিলিয়ে তিনবার করে আউট হওয়ার তালিকাটা একটু বড়, আর সেখানে আছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে তিনবার ম্যাচের প্রথম বলে আউট হয়েছেন তামিম।

তিনবারের এ তালিকায় তামিমের সঙ্গে আছেন দিমুথ করুণারত্নে, হাশিম আমলা, ক্রিস গেইল, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড, জেসন রয়। তামিমকে অবশ্য সাবধান থাকতে হবে। কেননা হান্নান-গাভাস্কারের গড়া ওই কাতারে উঠতে চায় কে!

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন