default-image

শুক্রবারের সকাল। বাংলাদেশের ছুটির দিন। সারা সপ্তাহের হাড়ভাঙা খাটুনির পর বেশির ভাগ মানুষই আজ একটু দেরি করে বিছানা ছেড়েছেন। ছুটির দিন ভোরে সকাল সাতটায় ঘুম থেকে উঠে টিভিতে নিউজিল্যান্ড-ইংল্যান্ড ম্যাচ দেখাটা যাঁদের কাছে একটু বাড়াবাড়ি ঠেকেছে, তাঁরা হয়তো এই মুহূর্তে আফসোসেই পুড়ছেন। বিছানার আয়েশের কারণে তাঁদের অনেকেরই যে মিস হয়ে গেছে দুটো দারুণ ব্যক্তিগত নৈপুণ্য। প্রথমে ইংলিশ ব্যাটিংয়ে টিম সাউদির তোপ, পরে ওয়েলিংটনের ওয়েস্টপ্যাক স্টেডিয়ামে ম্যাককালাম-ঝড়। ক্রিকেটপ্রেমী হয়ে থাকলে দুটো ঘটনাই হওয়া উচিত দারুণ মুখরোচক। 
সাউদির তোপে ১২৩ রানেই অলআউট হয়ে গেছে ইংল্যান্ড। নয় ওভার বল করে মাত্র ৩৩ রান দিয়ে ৭ উইকেট তুলে নিয়ে বিশ্বকাপের সেরা বোলিং পারফরম্যান্সের তালিকায় সাউদি নিজেকে নিয়ে গেছেন তৃতীয় স্থানে। রানের হিসাব একটু এদিক-ওদিক হয়ে যাওয়াতেই আজ তিনি অ্যান্ডি বিকেল ও গ্লেন ম্যাকগ্রার রেকর্ড পেরিয়ে যেতে পারেননি। কিন্তু তার পরও সাউদির এই বোলিং পারফরম্যান্স বিশ্বকাপের ইতিহাসেরই অন্যতম সেরা। বিকেল ও ম্যাকগ্রা—দুজনেই কিন্তু এই তালিকায় নাম তুলেছেন এক ইনিংসে সাত উইকেট নিয়ে।
টসে জিতে ব্যাট করা ইংল্যান্ড যে এভাবে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়বে—এমন ভাবনা কজনেরই বা ছিল। বরং ওয়েলিংটনের দর্শকেরা স্বাগতিক দলের সঙ্গে একটি দুর্দান্ত লড়াইই প্রত্যাশা করেছিলেন। কিন্তু ওয়েস্টপ্যাক স্টেডিয়ামের গ্যালারিভর্তি দর্শকের সামনে সাউদি বল হাতে যে এমন দুর্দমনীয় হয়ে উঠবেন, সেটা ছিল এক কথায় অনবদ্য। দলীয় ১৮ রানে প্রথম উইকেট পড়ার পর ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা যেন ব্যাটিং করাটাই ভুলে গেলেন। নাহ, ভুল বলা হলো সাউদি তাঁদের ব্যাটিং ভুলিয়ে দিলেন। একে একে সাউদি তুলে নেন ইয়ান বেল, মঈন আলী, জেমস টেলর, জস বাটলার, ক্রিস ওকস, স্টুয়ার্ট ব্রড ও স্টিভেন ফিনের উইকেট। ট্রেন্ট বোল্ট, অ্যাডাম মিলনে ও ড্যানিয়েল ভেট্টরি—প্রত্যেকেই নিয়েছেন একটি করে উইকেট।
ইংল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৬ রান এসেছে জো রুটের ব্যাট থেকে। মঈন আলী করেছেন ২০ রান, ১৭ এসেছে অধিনায়ক এউইন মরগানের ব্যাট থেকে। এই কজনের পাশাপাশি গ্যারি ব্যালান্সের ১০ ছাড়া দলের আর কেউই দুই অঙ্কের কোটা ছুঁতে পারেননি।
১২৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে খেলাটা একেবারে নিজের করে নেন কিউই অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। ১৮ বলে ৫০ ছুঁয়ে তিনি নাম লেখান ইতিহাসে। বিশ্বকাপের দ্রুততম ফিফটিটি করার জন্য তিনি আজ ওয়েলিংটনে বেছে নিয়েছিলেন ভাগ্যাহত ইংলিশদেরই। মাত্র ২৫ বল খেলে তাঁর ৭৭ রানের ইনিংসটিই এনে দেয় একদিনের ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম দ্রুততম জয়টি। ৭৭ রানের ইনিংসে তাঁর চারের মার আটটি, ছয় সাতটি। একটি ছয়ের জন্য বিশ্বকাপের এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছয়ের রেকর্ডটা ধরতে পারলেন না ম্যাককালাম। বিশ্বকাপে এই রেকর্ডের মালিক রিকি পন্টিং, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট ও ইমরান নাজিরের। তিনজনেই মেরেছেন আটটি করে ছয়।
মাত্র ১২.২ ওভারেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় নিউজিল্যান্ড। ম্যাককালামের ৭৭ রানের পাশাপাশি মার্টিন গাপটিলের ব্যাট থেকে এসেছে ২২ রান। ইংলিশদের রান টপকে যেতে নিউজিল্যান্ড অবশ্য হারিয়েছেন দুটো উইকেট। এই দুটোই নিয়েছেন ক্রিস ওকস। সূত্র: এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন