বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ব্রাউনের মনে হয়েছে, ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের অবস্থা দেখে খোদ অস্ট্রেলিয়ার বোলাররা চমকে গেছেন, ‘মেলবোর্নে যারা খেলা দেখতে এসেছিল, তাদের জন্য আপনার কষ্টই লাগবে। তারা ভেবেছিল, দিনের ৯০ ওভার ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করবে। কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি তারা অস্ট্রেলিয়ার বোলিং-তোপে উড়ে গেছে। এমনকি আমার তো মনে হচ্ছে যে দ্রুতগতিতে ইংল্যান্ডের শেষ উইকেটগুলো পড়েছে, তাতে অস্ট্রেলিয়ার বোলাররাও চমকে গেছে।’

default-image

এরপরই সেই ‘বোমা’টা ফাটান ব্রাউন, ‘ডেভিড ওয়ার্নার হয়তো ভেবেছিল তাকে আবারও ব্যাট করতে নামতে হবে। বেশ ভালো একটা রান তাড়া করতে হবে। কিন্তু সে উল্টো বিকেলটা কাটাল রোদ পোহাতে পোহাতে, মাঠের মধ্যে তিন মেয়েকে শেখাচ্ছিল কীভাবে ব্যাট করতে হয়। ওর বড় মেয়ের নাম আইভি মে, যার বয়স মাত্র ছয়। ওর রক্ষণাত্মক ব্যাটিংয়ের কৌশলও ইংল্যান্ডের মিডল অর্ডারের বেশ কয়েকজন ব্যাটসম্যানের চেয়ে ভালো!’

গোটা অ্যাশেজে ইংল্যান্ডের মিডল অর্ডারে খেলেছেন বেন স্টোকস, জনি বেয়ারস্টো, ওলি পোপ, জস বাটলারদের মতো ব্যাটসম্যান। ব্রাউনের তোপ যে তাঁদের দিকেই, সেটা বুঝতে আইনস্টাইন হওয়া লাগে না!

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন