default-image

‘আমাদের একটা খারাপ সেশন গেছে। তবে এই ইনিংস থেকে আমরা অনেক কিছুই শিখেছি। এখন সময় কী শিখলাম, সেটা দেখানোর। হাল ছেড়ো না, প্রাণপণে লড়ো।’ প্রথম ইনিংসে বিপর্যয়ের পর ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে টুইট করেছিলেন দিমুথ করুনারত্নে।
শ্রীলঙ্কান ওপেনার দেখিয়েই দিলেন, কী শিখেছেন। প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন, দ্বিতীয় ইনিংসে খেললেন ১৫২ রানের দারুণ এক ইনিংস। ৬ ফুট লম্বা এই বাঁহাতির প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিতেই ফলোঅন করতে নামা শ্রীলঙ্কা তৃতীয় দিনটা শেষ করল অনেকটাই স্বস্তি নিয়ে। না, এখনো হারের শঙ্কা দূর হয়নি, তবে ইনিংস হারের শঙ্কাটা আর নেই বললেই চলে। দিন শেষে শ্রীলঙ্কার রান ৫ উইকেটে ২৯৩। নিউজিল্যান্ডকে আবারও ব্যাট করাতে দরকার আর মাত্র ১০ রান। লঙ্কানদের ভরসা হয়ে ৫৩ রানে অপরাজিত ছিলেন অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস।
হ্যাগলি ওভালে কালই প্রথম খেলা হয়েছে পুরো ৯০ ওভার। কিন্তু রান করার চেয়ে টিকে থাকতেই বেশি মনোযোগ দেওয়া লঙ্কানরা সারা দিনে করেছে মাত্র ২০৯ রান। বিনা উইকেটে ৮৪ নিয়ে দিন শুরু করা শ্রীলঙ্কা দিনের প্রথম ওভারেই হারিয়ে ফেলে ওপেনার কুশল সিলভাকে। ৬ ওভার পর আউট সাঙ্গাকারাও। প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ৬ রান, এবার মাত্র ১। এরপর সাবধানী না হয়ে উপায় কী শ্রীলঙ্কার! প্রথম সেশনে ৩০ ওভারে ৪৭ রান বিজ্ঞাপন হলো সতর্ক ব্যাটিংয়েরই। তৃতীয় উইকেটে থিরিমান্নের সঙ্গে ৪৫.৩ ওভারে ৮৭ রান যোগ করলেন করুনারত্নে, এর পর ম্যাথুসের সঙ্গে ২৮.৪ ওভারে ৯৬। এরপরই ১০ রানের মধ্যে করুনারত্নে ও ডিকভেলাকে ফিরিয়ে দেন ট্রেন্ট বোল্ট। নিউজিল্যান্ডের হাসিতেই তাই শেষ হয় তৃতীয় দিন। ক্রিকইনফো, এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন