default-image

করোনা মহামারির মধ্যে যখন দিনের পর দিন বন্ধ থেকেছে ক্রিকেট, তখন সবার আগে অনুশীলনে নেমেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। করোনা-ধাক্কা সামলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরাতেও আছে ক্যারিবীয়দের অবদান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ আরও একটি দিকে এগিয়ে থাকছে এই করোনাকালে। আগামী মাসে তারা শুরু করছে জনপ্রিয় ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল)। কোভিড-১৯ অতিমারিতে এটিই হবে প্রথম টি-টোয়েন্টি লিগ। 

সিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট হয়ে গেছে গত মাসে। সিপিএল নিলামে বাংলাদেশের কয়েকজন ক্রিকেটারের নাম থাকলেও তাঁরা কেউ অবশ্য দল পাননি। ১৮ আগস্ট শুরু হচ্ছে টুর্নামেন্টটি। করোনা ঝুঁকির কারণেই এবার সিপিএল হবে শুধু মাত্র ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোতে। টুর্নামেন্ট আয়োজনে কাল ত্রিনিদাদ সরকারের অনুমতিও পেয়েছেন আয়োজকেরা।

অনুমতি দেওয়ার আগে সিপিএল কর্তৃপক্ষকে কিছু শর্ত বেঁধে দিয়েছে ত্রিনিদাদ সরকার। খেলোয়াড়, টুর্নামেন্টের ছয়টি ফ্র্যাঞ্চাইজির টিম ম্যানেজমেন্ট, আয়োজক, সম্প্রচারের দায়িত্ব থাকা সবাইকে ত্রিনিদাদের ফ্লাইট ধরার আগেই দুই সপ্তাহে সঙ্গনিরোধ অবস্থায় থাকতে হবে। ত্রিনিদাদে পৌঁছানোর পরও একই ব্যবস্থা।

আর বিদেশি ক্রিকেটার কিংবা টুর্নামেন্টের সঙ্গে যুক্ত বিদেশি সবাইকে অবশ্যই একাধিকবার নির্দিষ্ট সময়ভেদে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করাতে হবে। টিম হোটেলে খেলোয়াড় কিংবা টিম ম্যানেজমেন্টের কোনো অতিথি আসতে পারবে না।

জৈব-নিরাপদ পরিবেশে ত্রিনিদাদের দুটি স্টেডিয়ামে সিপিএলের ম্যাচ হবে মোট ৩৩টি। টুর্নামেন্টের ফাইনাল ১০ সেপ্টেম্বর। ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট সিরিজ দিয়ে শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। এবার ক্যারিবীয়দের হাত ধরে ফিরতে যাচ্ছে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগও।  করোনাকালে বড় উদাহরণই হয়ে থাকছে উইন্ডিজ।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন