করোনার ক্ষতিতেও 'লাভ' খুঁজলেন দ্রাবিড়

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনাপরবর্তী বিশ্ব কেমন হবে? কেমন হবে পরস্পরের সঙ্গে মানুষের আচরণ? চাইলেও হয়তো কেউ কাউকে সহজে বুকে জড়িয়ে ধরতে পারবে না। হাত বাড়িয়ে করতে পারবে না সৌজন্য করমর্দন। সবার মধ্যেই জড়তা কাজ করবে। সঙ্গে থাকবে ভয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার অজানা আতঙ্ক। শুধু সাধারণ মানুষ নয়, খেলোয়াড়দের মধ্যেও দেখা যাবে এই পরিবর্তন। অন্তত কিছু দিনের জন্য হলেও এমন জড়তা, ভয় খেলোয়াড়দের মধ্যে কাজ করতে পারে বলে মনে করেন ভারতের সাবেক ব্যাটসম্যান রাহুল দ্রাবিড়।

 করোনার এই দুঃসময়ে অনেকের মতোই ফেসবুক লাইভে এসে আড্ডা দিচ্ছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক। অলিম্পিকে সোনাজয়ী ভারতীয় শ্যুটার অভিনব বিন্দ্রা এবং ব্যাডমিন্টন কিংবদন্তি প্রকাশ পাড়ুকোনের সঙ্গে আড্ডা দিতে গিয়ে দ্রাবিড় বলেন, 'অল্প সময়ের জন্য হলেও মানুষের মনে এক ধরনের সংশয় বা ভয় কাজ করবে। আমি নিশ্চিত যখন আবারও স্বাভাবিক জীবনে ফিরব তখন সবার মধ্যেই জড়তা দেখা দেবে।'

 করোনা পরিস্থিতিতে চাইলেই ঘর থেকে বের হওয়া যাচ্ছে না। এমন অপ্রত্যাশিত বিরতিতে অনেকে ফিটনেস নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়ছেন। কিন্তু অপ্রত্যাশিত এই বিরতি অনেক খেলোয়াড়ের ক্যারিয়ার সমৃদ্ধ করতে পারে। অন্তত তেমনটাই মনে হয়েছে টেস্টে ১৩ হাজার ২৮৮ রানের মালিকের, ' আমি ব্যক্তিগতভাবে এতে (মহামারির সময়ের বিরতি) কোনো সমস্যা দেখছি না।  আমি মনে করি না যে খেলোয়াড়েরা মাঠে গিয়ে যা করতে ভালোবাসেন সেটা করতে তাদের কোনো সমস্যা হবে।' তবে খেলোয়াড়দের ফিটনেস ফিরে পাওয়াটাকে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন 'দ্য ওয়াল',' অনেক খেলোয়াড়ের জন্য অন্যতম চ্যালেঞ্জ হবে তাদের ফিটনেস ফিরে পাওয়া। দুই-তিন মাস না খেলে বা শরীরটাকে নাড়াচাড়া না করলে খেলার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়াটা কঠিনই হবে।'

এই সময়ে ফিটনেস ফিরে পেতে অনেক সময় লাগতে পারে খেলোয়াড়দের। তাদের জন্য দ্রাবিড়ের পরামর্শ, 'ম্যাচ ফিটনেস, খেলার ফিটনেস ফিরে পেতে একটু সময় লাগতে পারে। এজন্য তাদের অবশ্যই পর্যাপ্ত সময় দিতে হবে।'

 মহামারির এই লম্বা বিরতিতে খেলোয়াড়দের জন্য শাপেবর দেখছেন দ্রাবিড়। এমনও হতে পারে যে এই বিরতির কারণে খেলোয়াড়দের ক্যারিয়ার আরও লম্বা হতে পারে, 'আমি অনেক ক্রিকেটারকেই বলেছি যে এই সময়টা শরীর আর মনকে বিশ্রাম দেওয়ার একটা সুযোগ হিসেবে দেখতে। তুমি কখনোই এমন সুযোগ আর পাবে না। যদি তুমি এই দুই মাস ভালোভাবে কাজে লাগাও তাহলে তোমার ক্যারিয়ার আরও দুই তিন বছর অনায়াসে লম্বা করতে পারবে। যে সুযোগটা অন্য সময় হয়তো তুমি কখনোই পেতে না।'

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন