default-image
করোনাভাইরাস আতঙ্কে বেশ কিছু বিদেশি ক্রিকেটার পিএসএল ছেড়ে দেশে ফিরলেও ক্রিস লিন থেকে গিয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিতেই হলো অস্ট্রেলিয়ান এ ব্যাটসম্যানকে


করোনাভাইরাস সংক্রমণের আতঙ্কে বেশ কিছু বিদেশি ক্রিকেটার পাকিস্তান ছেড়ে ফিরেছেন দেশে। লাহোর কালান্দার্স এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। বিদেশি কোনো ক্রিকেটারকে তারা হারায়নি। মানে সব বিদেশি ক্রিকেটার থেকে গেছেন তাদের শিবিরে। কাল পিএসএলে যেমন ক্রিস লিন, বেন ডাঙ্ক ও ডেভিড ভিসেদের নিয়ে নেমে ৯ উইকেটে জিতেছে কালান্দার্স। আর এ জয়ের পেছনে বড় ভূমিকা লিনের ৫৫ বলে ১১৩ রানের ঝোড়ো ইনিংসের।

লিন এর আগে করোনা আতঙ্কের মধ্যেই পাকিস্তানে থেকে পিএসএলে খেলে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। এমনকি কাল ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনেও ছিল সে ইচ্ছার রেশ, ‘আমি জিততে চাই। বাড়ি ফিরে দুই সপ্তাহ সব কিছু থেকে আলাদা থাকার চেয়ে আমি মাঠে নেমে ছক্কা মারতেই বেশি পছন্দ করব। বাড়ি ফিরে গেলে তো এটা (সেঞ্চুরি) হতো না।’

কালান্দার্সে থেকে যাওয়ার বিদেশি ক্রিকেটারদের প্রশংসাও করেছিলেন লিন। বিপিএলে খেলা এ অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান বলেছিলেন, ‘কালান্দার্সের বিদেশি খেলোয়াড়দের নিয়ে আমি গর্বিত। তারা এক সঙ্গেই আছে। আজ (কাল) রাতে একজন (বিদেশি খেলোয়াড়) চলে যাবে। ওর অবশ্যই শিশু বাচ্চা আছে। কালান্দার্সের কাছে পরিবারই সবার আগে।’

default-image

এদিকে আজ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে পিএসএলের পাট চুকিয়ে দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লিন। ২৯ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যানকে অস্ট্রেলিয়ায় ফেরার পর ১৪দিন ‘সেলফ-আইসোলেশন’ মানে সবকিছু হতে আলাদা থাকতে হবে। করোনা-সংক্রমণরোধে বিদেশে থেকে ফেরা মানুষদের ক্ষেত্রে এ নিয়ম বেঁধে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

লিন নিজেও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তাঁর দেশে ফেরার খবরটি নিশ্চিত করেছেন, ‘পিএসএলে সময়টা খুব উপভোগ করেছি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে এ অবস্থায় আমাকে দেশে ফিরতে হচ্ছে। সব সময় বলেছি ক্রিকেটের বাইরের জীবনটা বড়। এ ক্ষেত্রে সেটাই ঘটেছে। সবাইকে পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ। পাকিস্তান, তুমি দুর্দান্ত।’ পাকিস্তানে এ পর্যন্ত ২০জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন